দেশে কিশোর অপরাধ বেড়ে যাওয়ায় শিশুর বয়সসীমা কমানোর সুপারিশ করেছে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি

সাম্প্রতিক সময়ে দেশে কিশোর অপরাধ বেড়ে যাওয়ায় আইনের সংজ্ঞায় শিশুর বয়সসীমা ১৮ বছর থেকে কমানোর সুপারিশ করেছে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

রবিবার (৩ জুলাই) সচিবালয়ে কমিটির বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন।

মন্ত্রী বলেন, “আইনে আগে ১৪ বছর পর্যন্ত বয়সীদের শিশু হিসেবে ধরা হতো। কিন্তু বর্তমানে এটা আন্তর্জাতিক আইনের সঙ্গে সমন্বয় করে ১৮ বছর করা হয়েছে। এখন বাংলাদেশের বাস্তবতার নিরিখে পরিবর্তন আনা দরকার। বয়সটা ১৮ বছরের নিচে আনা প্রয়োজন বলে সভায় সুপারিশ করা হয়েছে।”

তিনি আরও বলেন, “সম্প্রতি ১৪ বছরের একজন ছাত্র শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যা করে ফেলেছে। ওই ছাত্র শিশু হওয়ায় তাকে আইনের আওতায় আনতে সমস্যা হচ্ছে। এজন্য আইন মন্ত্রণালয়কে বলা হয়েছে, দেশের প্রেক্ষাপটে ও আন্তর্জাতিকভাবে বিভিন্ন দেশের আইনে কী আছে- সেসব বিষয় বিবেচনায় নিয়ে আইনের পরিবর্তন আনায় কাজ করতে।”

মন্ত্রী বলেন, “বৈঠকে আমরা শিশু আইন সংশোধন করার সুপারিশ করেছি। আমার ব্যক্তিগত অভিমত শিশুদের বয়স ১৪ বছর পর্যন্ত করা। তবে বৈঠকে এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। সিদ্ধান্ত হয়েছে ১৮ বছর থেকে কমানোর।”

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রীর সভাপতিত্বে সভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, আইনমন্ত্রী, তথ্যমন্ত্রী, শিল্পমন্ত্রী, নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী, শ্রম প্রতিমন্ত্রী উপস্থিত ছিলেন।