সাইফুল ইসলাম: টাঙ্গাইলের মধুপুরের পাহাড়ি অজপাড়া গাঁয়ের প্রত্যন্ত গ্রাম্য এলাকায় আউশনারা কলেজটি ২০১২ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয়। রাজনীতিমুক্ত ও ধুমপানমুক্ত নির্মল পরিবেশে চমৎকার ক্যাম্পাস শুরু থেকেই দৃষ্টি কাড়ছে সবার। প্রতিষ্ঠার পর থেকে কলেজটি ভালো পাঠদান ও ফলাফলের মাধ্যমে সবার দৃষ্টি কেড়েছে। এ বছর কলেজটিতে প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থীকে বিনা বেতনে ইন্টারমিডিয়েট পর্যন্ত পড়ানো হচ্ছে। বিগত দিনে আউশনারা কলেজ থেকে ছাত্র ছাত্রী ভালো রেজাল্ট করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাষানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছে।

২০১২ সালে গরিব, হতদরিদ্র ও পিছিয়ে পড়া গ্রামীণ জনপদের শিক্ষার্থীদের সুশিক্ষিত করার ব্রত নিয়ে এই কলেজটি প্রতিষ্ঠা করা হয়। শুরু থেকে শিক্ষা প্রসারে কলেজটি অগ্রণী ভূমিকা রেখে চলছে। কিন্তু কলেজটি প্রতিষ্ঠা পর থেকে শিক্ষক ও কর্মচারীদের বেতনসহ যাবতীয় খরচ, নিজস্ব পরিবহনের (অটো, বাসের) মাধ্যমে যাতায়াতের ব্যয়ভার নিজেরাই বহন করছেন বলে জানা গেছে। এক্ষেত্রে শিক্ষক-শিক্ষিকারা স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতেই এ মহান পেশার গুরুভার দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

আউশনারা কলেজ

আদিবাসী পাহাড়ি অঞ্চলের কথা বিবেচনায় রেখে এ কলেজটির অবশ্যই এমপিওভুক্তির প্রয়োজন। দরিদ্র পরিবারের শিক্ষার্থীদের শিক্ষার সুযোগ গ্রহণের একমাত্র শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি এমপিওভুক্তির জোর দাবি জানিয়েছেন কলেজের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবক, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সহ এলাকাবাসী ও সচেতন মহল।

আউশনারা কলেজের অধ্যক্ষ কামরুজ্জামান জুয়েল জানান,
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার শিক্ষাবান্ধব সরকার। শিক্ষার উন্নয়নে এই সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আউশনারা কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীরা নামমাত্র সম্মানিতে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। এখন পর্যন্ত কলেজটি এমপিওভুক্ত না হওয়ায় আর্থিক অভাব-অনটনের কারণে সমাজের সর্বোচ্চ শিক্ষিত হয়েও শিক্ষকরা সামাজিক মর্যাদা নিয়ে জীবনযাপন করতে পারছেন না। প্রতিষ্ঠানটি এমপিওভুক্ত করা হলে শিক্ষার ক্ষেত্রে অগ্রগতি যেমন বাড়বে, তেমনি টাঙ্গাইল জেলার মধ্যে আউশনারা কলেজ একটি অনন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করবে।

আউশনারা কলেজের প্রভাষক আবু সালেহ বলেন, দরিদ্র পরিবারের শিক্ষার্থীদের শিক্ষার সুযোগ গ্রহণের একমাত্র শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি এমপিওভুক্তির জোর দাবি জানাচ্ছি। আউশনারা কলেজের এমপিও না দিলে গ্রামের ছাত্র ছাত্রীরা লেখাপড়া থেকে বঞ্চিত হবে। সার্বিক দিক বিবেচনায় বর্তমান শিক্ষাবান্ধব এ সরকার শিক্ষাকে একটি গণমূখী ব্যবস্থা হিসেবে গড়ে তোলার জন্য প্রত্যন্ত অঞ্চলের এই কলেজকে চলতি অর্থ বছরে এমপিও ভুক্ত করে শিক্ষা বিস্তারের এই চলমান ধারা অব্যাহত রাখার জোর দাবি জানাচ্ছি।