স্পোর্টস ডেস্ক : বাংলাদেশ জাতীয় নারী দলের সাবেক অলরাউন্ডার চামেলী খাতুন আগের চেয়ে ভালো আছেন। গত ২৩ নভেম্বর উন্নত চিকিৎসার জন্য চামেলীকে ভারতের ব্যাঙ্গালুরুর শীর্ষপর্যায়ের একটি বেসরকারি অর্থপেডিক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় এবং সেখানেই চামেলীর ডান পায়ের লিগামেন্টের অস্ত্রোপচার হয়। আট বছর পূর্বে খেলার সময়ই তার ডান পায়ের লিগামেন্ট ছিঁড়ে যায়। একই সঙ্গে মেরুদন্ডে দুই হাড়ের ডিস্কগুলো নষ্ট হয়ে পড়ায় তাঁর শরীরের ডান পাশ অবশ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিল।

চামেলীর পরিবার থেকে জানা যায়, তার পায়ের অবস্থা আগের চেয়ে অনেক ভালো হচ্ছে। তবে সম্পূর্ণ সুস্থ হতে এখনও ৬ মাস সময় লাগবে। এ সময়কালে তাকে স্ট্রেচারে ভর দিয়ে হাঁটতে হবে। আগামী ১০ ডিসেম্বর রাজশাহী ফেরার কথা রয়েছে তার।

এর আগে গত ২ নভেম্বর রাজশাহী থেকে ঢাকায় জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতালে) ভর্তি করা হয় চামেলীকে । কিন্ত চামেলী ভারতে চিকিৎসার জন্য বললে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে তাকে সে দেশে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়।

উল্লেখ্য, ক্রিকেটের পাশাপাশি বাংলাদেশ আনসার বাহিনীতেও চাকুরী করতেন এই অলরাউন্ডার। গত ২৫ সেপ্টেম্বর রাজশাহী আনসার অফিসে কাজ করার সময় ডান হাত ও পায়ে কাঁপুনি উঠে পড়ে যান চামেলী। এরপর ৩ অক্টোবর অফিসে কাজ করার সময় আবার পড়ে যান চামেলী। এর পর থেকেই বিছানাতেই সময় পার করেন তিনি। ১৯৯৯ থেকে ২০১১ পর্যন্ত জাতীয় নারী ক্রিকেট দলের সদস্য ছিলেন চামেলী।