কাজী ওহিদ, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা এমপি গণমাধ্যমে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, আজকের শিশুরাই আগামীতে বঙ্গবন্ধু’র আদর্শ বাস্তবায়ন করবে। আজকে যারা শিশু ২০৪১ সালে তারাই দেশ গড়ার প্রকৃত কারিগর হবে।

১৬ মার্চ মঙ্গলবার দুপুরে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপনের সকল প্রস্তুতি ঘুরে দেখে তিনি একথা বলেন। মন্ত্রী আরো বলেন,১৭ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস-২০২১ অনুষ্ঠানের সকল প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন করেছে গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসন। আজ ভার্চুয়ালী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এ অনুষ্ঠানে যুক্ত হবেন।

এর আগে তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন এবং পবিত্র ফাতেহা ও দুরুদ পাঠ শেষে ‘৭৫ -এর ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারে নিহত সকল শহীদের রুহের মাগফেরাত কামনায় বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করেন।

এ সময় স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব সায়েদুল ইসলাম, শিশু একাডেমীর মহাপরিচালক জ্যোতি লাল কুরী, গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা, বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভানেত্রী সাফিয়া খাতুন, গোপালগঞ্জ জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভানেত্রী ও জেলা মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান নাসিমা আক্তার রুবেল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কাজী শহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) ইলিয়াছুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) উসমান গনি, জেলা মহিলা বিষয়ক উপ-পরিচালক আলতাফ হোসেন, সদ্য সাবেক উপ-পরিচালক আজমীর হোসেন, জেলা শিল্পকলা একাডেমির কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মামুন, জেলা শিশু একাডেমির কর্মকর্তা শাহীন আলম, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান মো.সোলায়মান বিশ্বাস, পৌর মেয়র শেখ তোজাম্মেল হক টুটুল, উপজেলা নির্বাহী অফিসার  একেএম হেদায়েতুল ইসলাম, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) দেদারুল ইসলাম, কোটালীপাড়া মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শ্রী ময়ী বাগচী, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আরাধনা রানী কর্মকার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পরে বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে সমাধি সৌধ কমপ্লেক্সে কেক কেটে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১ তম জন্মবার্ষিকী পালন করা হয়েছে।