নিজস্ব প্রতিবেদক : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে লড়তে এরই মধ্যে ২০৬ জন প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছে বিএনপি। বাকি ৯৪টি আসনের বিষয়ে জোট শরিকদের সঙ্গে আলোচনা করে আজ শনিবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে দলটি। তবে ইতিমধ্যেই চূড়ান্ত মনোনয়ন দৌড় থেকে বাদ পড়েছেন দলটির অনেক শীর্ষস্থানীয় নেতা, আলোচিত সাবেক মন্ত্রী, এমনকি বেশ কয়েকজন সাবেক এমপিও।

এদের মধ্যে রয়েছেন- দলের ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, শামসুজ্জামান দুদু, গাজীপুরের সাবেক মেয়র ও সাবেক মন্ত্রী অধ্যাপক আবদুল মান্নান ও তার ছেলে মনজুরুল করিম রনী, সাবেক মন্ত্রী মেজর (অব.) মঞ্জুর কাদের, সাবেক এমপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মসিউর রহমান, সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী আ ন ম এহছানুল হক মিলন ও তার স্ত্রী নাজমুন নাহার বেবী, সাবেক এমপি ও সুনামগঞ্জ জেলা সভাপতি কলিম উদ্দিন মিলন, সাবেক এমপি ইসরাত সুলতানা ইলেন ভুট্টো, প্রয়াত মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেনের ছেলে খোন্দকার আবদুল হামিদ ডাবলু প্রমুখ।

মনোনয়ন না পেয়ে গতকাল শুক্রবার রাতে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ের সামনে ও আজ শনিবার বিএনপির নয়াপল্টন কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করছে বিএনপির অনেক নেতাকর্মী। এ সময় কেউ কেউ দলের মহাসচিব ফখরুলকে গালিগালাজ করেন। অনেক বিক্ষুব্ধ কর্মী কার্যালয়ের ফটকে ইট-পাটকেল পর্যন্ত ছোড়েন।

আসন্ন নির্বাচনে বিতর্কিতদের চূড়ান্ত মনোনয়নে স্থান দেওয়ায় বিএনপির অনেক নেতা-কর্মী অভিযোগের সুরে বলেন, বেছে বেছে গত দশ বছরের সব ত্যাগী পরিশ্রমী নেতাদের বাদ দেওয়া হয়েছে। অযোগ্যরাই লবিংয়ের জোরে চূড়ান্ত মনোনয়নে স্থান পেয়েছে। চূড়ান্ত মনোনয়নে কারা স্থান পাবে যারা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা দলের কথা চিন্তা করেনি। সরকারের দালাল এঁরা। সরকারের এজেন্টরাই বিএনপির মনোনয়ন দিয়েছে।

অন্যদিকে, নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছেন চাঁদপুর-১ (কচুয়া) আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী বিএনপির সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী এহসানুল হক মিলনের সমর্থকরা।

শনিবার দুপুরে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে মিলনের শতাধিক সমর্থক নয়াপল্টন কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেন।

এর আগে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে তারা বিক্ষোভ করেন। মিলনের সমর্থকরা বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মো. মোশাররফ হোসেনের পরিবর্তে এহসানুল হক মিলনকে মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানান।

মিলনের মনোনয়নের দাবিতে তার সমর্থকরা বিভিন্ন স্লোগান দেন। এসময় তার স্ত্রী সাবেক মহিলা দলের নেত্রী নাজমুন নাহার বেবি উপস্থিত ছিলেন। তিনি বলেন, ‘দলের জন্য যারা কাজ করছে তাদের মূল্যায়ন করেনি বিএনপি।’