বিনোদন ডেস্ক : কিংবদন্তি চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেনের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। আজ রোববার সকাল আনুমানিক সাড়ে ১১টার দিকে মায়ের কবরের পাশে তাঁকে দাফন করা হয়।

গতকাল (২২ ডিসেম্বর) রাত ৯টায় আমজাদ হোসেনের মরদেহ তাঁর জন্ম শেকড় জামালপুরে পৌঁছায়। এরপর আজ সকাল ১১টায় জামালপুর সদর হাইস্কুল মাঠে তাঁর পঞ্চম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে ১১টা ২০ মিনিটে আমজাদ হোসেনকে জামালপুর পৌর কবরস্থানে তাঁর বাবা নুরু উদ্দিন সরকারের কবরে তাঁকে দাফন করা হয়।

এর আগে গতকাল সকালে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সমাজের সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় সিক্ত হন আমজাদ হোসেন। এরপর এটিএন বাংলা ও চ্যানেল আই-তে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন শেষে দুপুর দেড়টায় তাঁর স্মৃতিবিজড়িত কর্মস্থল এফডিসিতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে আরও একবার বন্ধু, সহকর্মী, ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় সিক্ত হন আমজাদ হোসেন।

গত ১৮ নভেম্বর ব্রেন স্ট্রোক করে রাজধানীর একটি হাসপাতালে ভর্তি হন আমজাদ হোসেন। এরপর প্রধানমন্ত্রীর সহায়তায় ২৮ নভেম্বর উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে ব্যাংককে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৪ ডিসেম্বর তিনি মৃত্যুবরণ করেন। ব্যাংকক থেকে শুক্রবার সন্ধ্যায় তাঁর মরদেহ ঢাকায় পৌঁছে।

ষাটের দশকে চলচ্চিত্রে কাজ করার স্বপ্ন নিয়ে জামালপুর থেকে ঢাকার এফডিসিতে আসেন আমজাদ হোসেন। চলচ্চিত্রকে ভালোবেসে শুরুতে অভিনয়; এরপর চলচ্চিত্র পরিচালনা, চিত্রনাট্য, গান ও নাটক লেখায় অবদান রাখতে শুরু করেন। তাঁর হাত ধরেই নির্মিত হয় ‘আগুন নিয়ে খেলা’, ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’ ‘ভাত দে’ ও ‘নয়নমণি’র মতো কালজয়ী ছবি।