মোঃনাজমুল হোসেন বিজয় বরগুনা  জেলা প্রতিনিধিঃ বরগুনার আমতলীতে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে এক কিশোরী ও তার মাকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে এক বখাটের বিরুদ্ধে। আহত মা-মেয়েকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে। অভিযুক্ত বখাটে রুহুল আমিন উপজেলার কুকুয়া গ্রামের আঃ আজিজ মিয়ার পুত্র।
ভুক্তভোগীরা জানায়, বখাটে রুহুল আমিন দীর্ঘদিন ধরে ওই কিশোরীকে উত্ত্যক্ত করে আসছিলো। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ওই কিশোরী তার মায়ের সাথে আমতলীতে নানাবাড়ি বেড়াতে আসে। সেখান থেকে রাত অনুমান ৭ থেকে ৮টার দিকে বাড়ীতে ফেরার পথে পৌর শহরের সবুজবাগ এলাকায় তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে ওই বখাটে রুহুল আমিন। এ সময় কিশোরীর ডাক চিৎকারে তার মা এগিয়ে আসলে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে মা ও মেয়েকে বেধড়ক মারধর করে রুহুল আমিন ও তার সহযোগীরা। এতে কিশোরীর মায়ের সামনের দাঁত ভেঙে যায়। ওই রাতেই স্বজনরা তাদের উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন। বর্তমানে ওই হাসপাতালেই মা ও মেয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন।
কিশোরীর মা বলেন, বখাটে রুহুল আমিন আমার মেয়েকে অনেক উত্ত্যক্ত করে। তাকে অনেকবার নিষেধ করা সত্তে¡ও সে কোন কথা শোনে না। গতকাল (বৃহস্পতিবার) রাতে আমার মেয়ে নানাবাড়ি থেকে বাড়ীতে ফেরার সময় পথিমধ্যে রুহুল ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় মেয়ের ডাক চিৎকারে তাকে রক্ষা করতে এগিয়ে গেলে সে আমাদের মারধর করে দাঁত ভেঙ্গে ফেলছে।  আমি এ ঘটনার বিচার চাই।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোর্শেদ আলম বলেন, মা ও মেয়েকে যথাযথ চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মিজানুর রহমান মুঠোফোনে বলেন, এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।