বাংলাদেশের অর্থনীতি নিয়ে ঘাবড়ে যাওয়ার কোনো কারণ নেই বলে মনে করেন পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক শামসুল আলম। তিনি বলেছেন, “অত ঘাবড়ে যাওয়ার বা আশঙ্কা করার কোনো কারণ নেই। আমরা আশঙ্কা সৃষ্টি করতে খুব দক্ষ।” দেশের বর্তমান পরিস্থিতিকে “বৈশ্বিক আরোপিত সংকট” বলেও অভিহিত করেন তিনি।

শুক্রবার (২২ জুলাই) “খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়” টকশোতে এসব কথা বলেন তিনি। এবারের টকশোতে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক শামসুল আলম এবং পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচ মনসুর।

বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমে যাওয়ার ফলে অর্থনীতিতে সামগ্রিকভাবে কতটা সংকট তৈরি হয়েছে, এমন এক প্রশ্নের জবাবে অধ্যাপক শামসুল আলম বলেন, “আমরা আশঙ্কা সৃষ্টি করতে খুব দক্ষ। কিন্তু পদ্মা সেতু নিয়ে আমাদের অনেক আশঙ্কা সৃষ্টি হয়েছিল। হবে না, করা যাবে না। তো সেই আশঙ্কাবাদী অর্থনীতিবিদদের কথা শুনে প্রধানমন্ত্রী দেশ চালালে আজকে পদ্মা সেতু বাস্তবে রূপ নিতো না। কাজেই আশঙ্কার কথা আমি উড়িয়ে দেবো।”

তিনি আরও বলেন, “অনেক আশঙ্কার কথা আমরা শুনি সর্বত্রই। এই আশঙ্কা, ওই আশঙ্কা, এটা হবে না, ওটা হচ্ছে না। হিসাব পরিষ্কার, ৪০ বিলিয়নও (মার্কিন ডলারে বাংলাদেশের রিজার্ভ) সঠিক। বাকিটা উৎপাদন ব্যবস্থায় আছে, যেটি আমাদের সম্পদ সৃষ্টিতে সহায়ক হচ্ছে।”

মেগা প্রকল্পের ঋণ নিয়ে কোনো সমস্যা হবে না, পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রীর এমন দাবির উত্তর দেন ড. আহসান এইচ মনসুর। তিনি মনে করেন, অনেক ক্ষেত্রেই সবদিক বিবেচনা না করেই সরকার প্রকল্প হাতে নেয়।

তিনি বলেন, “প্রত্যেকটা প্রকল্পেরই জাস্টিফিকেশন থাকা উচিত। সেটার অর্থনৈতিক জাস্টিফিকেশন থাকে, সামাজিক, রাজনৈতিক এবং সক্ষমতার সাথে সেটা কতখানি যৌক্তিক সে বিষয়গুলো বিবেচনা করেই প্রকল্পগুলো নেওয়ার প্রয়োজন আছে।”

পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী বলেন, “আমাদের মতো অনেক দেশেই যে সমস্যাটা হয়, অনেক সময় প্রকল্পগুলো নেওয়া হয় কিন্তু সবকিছু বিবেচনা হয়তো করা হয় না। যেমন আমরা বলতে পারি রূপপুরের ক্ষেত্রে অনেককিছুই করা হয়নি। এটার এনভায়রনমেন্ট অ্যাসেসমেন্ট করা হয়নি, ইন্টারনাল রেট অব রিটার্ন এবং প্রকল্পের ব্যয়ভার প্রকল্পের উৎপাদনের তুলনায় বেশি। সেটা নিয়ে অনেক প্রশ্ন করতে পারেন, কিন্তু প্রকল্প শুরু হয়ে গেছে এখন আর কিছু করার নেই। এ বোঝাটা আমাদের টানতেই হবে।”

পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে রেললাইন করার সিদ্ধান্ত বেশ ভালো হলেও রেলওয়ের অন্য নানা প্রকল্প সঠিকভাবে সবকিছু বিবেচনায় রেখে করা হয়নি বলেও উল্লেখ করেন ড. আহসান এইচ মনসুর।

আর্থিক সংকটের কারণে বাংলাদেশ সরকার ঘাবড়ে গেছে কি-না, এমন প্রশ্নের উত্তরে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী বলেন, “বাংলাদেশের অর্থনৈতিক রূপান্তরে যে ভূমিকা রাখতে পেরেছে আওয়ামী লীগ সরকার, তাতে সরকার আস্থাশীল। এই শঙ্কাটা আমরা কাটিয়ে উঠবো, সুন্দরভাবে কাটিয়ে উঠবো।”

ড. আহসান এইচ মনসুরও মনে করেন বর্তমানে যে অর্থনৈতিক অস্থিরতা রয়েছে, সেটিকে “সংকট” না বলে “সমস্যা” বলাই শ্রেয়। সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত নিলে এটি কাটিয়ে ওঠা সম্ভব বলেও মনে করেন তিনি।