খোরশেদ আলম, সাভার প্রতিনিধি: আশুলিয়া থানাধীন ধামসোনা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের দরগাহ পাড়  এলাকায় একটি বিদেশ প্রবাসী বাসাবাড়িতে হামলা-ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। হামলার ঘটনায় একদল সন্ত্রাসী তার বাড়িতে হামলা চালায় এসময়়় সিসি ক্যামেরার  ফোটে  দেখা যায় তার বাড়ির একটি গেটে এলোপাতাড়িভাবে কোপাতে  থাকতে দেখা যায় এতে আহত হয় ৩ জন।     এই ঘটনার সূত্রে জানা যায় আশুলিয়ায় নির্মাণাধীন বাড়ির ময়লা পাশের বাড়ির টিনের চালে পড়াকে কেন্দ্র করে হামলা-ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ভবন মালিক বাদি হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।  

শনিবার বিকেল ৩ টার দিকে আশুলিয়ার মধ্য গাজিরচট দরগাহ পাড় এলাকার লেদু মিয়ার বাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটে। 

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, আশুলিয়ার মধ্য গাজিরচট দরগাহ পাড় এলাকার লেদু মিয়া ৭তলা বিশিষ্টি একটি বাড়ির নির্মাণ করছে। নির্মাণ কাজের সময় নিমার্ণকাজে ব্যবহৃত ইট, বালি ও সিমেন্ট পাশের বাড়ির মালিক নিয়ামত উল্লাহ এর টিনের চালে পড়ে। বিষয়টি ভবন মালিক লেদু মিয়াকে জানানো হলে তিনি টিনের চাল ঠিক বা  টিন পরিবর্তন করে দেওয়ার আশ্বাষ প্রদান করেন। কিন্তু শনিবার বিকেলে হঠাৎ করে পাশের বাড়ির মালিক নিয়ামত উল্লাহ ১০/১২ জন লোক নিয়ে দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে ভবন মালিক লেদু মিয়া ডেকে এনে এলোপাথারি মারপিট শুরু করে। পরে তার ব্যবহৃত মোবাইলটি ভেঙ্গে ফেলে এবং তার বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় ভবন মালিকের দরজা ভাঙ্চুর করে। হামলায় বাদা দিলে ভবন মালিকের বোনের স্বামী নুর নবীকে ইট দিয়ে আঘাত করে। এতে নুর নবী গুরুত্বর আহত হয়। পরে স্থানীয়া এগিয়ে আসলে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চলে যায়।

এ ব্যাপারে ভবন মালিক লেদু মিয়া বলেন, আমি নির্মাণ শ্রমিকদের সবকিছু দিয়েছি। তারা কোনো কিছু ব্যবহার না করে নির্মাণ কাজ করায় পাশের বাড়িতে ময়লা পরেছে। বিষয়টি আমি জানতে পেয়ে তাদের টিনের চাল ঠিক করে দিবো বলেছি। প্রয়োজনে টিন পরিবর্তন করে দিবো। তারা আমার কোনো কথা না শুনে আমার উপর হামলা চালিয়েছে। আমার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন ও বাড়িতে ভাঙচুর করেছে। আমি এর বিচার চাই।

টিনসেড বাড়ির মালিক নিয়ামত উল্লাহ এর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তা সম্ভব হয়নি।

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) হারুন-অর-রশিদ বলেন, আমি ঘটনার খবর শুনেছি, অভিযোগও পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।