খোরশেদ আলম, সাভার প্রতিনিধি: সাভারের আশুলিয়ায় দাবিকৃত চাঁদা না পেয়ে সেলিম (৩৫) নামের এক মৎস খামারিকে উপর্যুপরি কুপিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করেছে সন্ত্রাসীরা।

বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ)  দুপুরে আশুলিয়ার নলামের দেওয়ানটেক এলাকার মিস্টুর মৎস খামারে এ ঘটনা ঘটে। এঘটনায় আহতকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত সেলিম মিয়া ওই এলাকার সুরুজ মিয়ার ছেলে। তিনি দেওয়ানটেক এলাকার মিস্টু মিয়ার ১০ বিঘা জায়গা ভাড়া নিয়ে তিনি মাছের চাষ করতেন।

অভিযুক্তরা হলেনঃ আশুলিয়ার নলামের পাড়াবাড়ি এলাকার মৃত তারা মিয়ার ছেলে। এছাড়া তার সহযোগিতা শামীম, ইমরান পাপ্পুসহ অজ্ঞাত আরও ৫ থেকে ৬ জন।

প্রত্যক্ষদর্শী আবুল হোসেন জানান, সকাল থেকে সেলিম তার মাছের খামারে কাজ করছিলেন। সেলিম আমাকে বলে, খামারে একটা ঘর বানাতে হবে। পরে সে চাটাইয়ের মাপ নিচ্ছিলো। এসময়  মামুন ও তার সহযোগী শামীম, ইমরান পাপ্পু সেলিমের ওপর অতর্কিত হামলা করে। তারা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে সেলিমকে কোপায় ও গুলি করার হুমকি দেয়। এসময় তার চিৎকার শুনে এলাকার লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে সেলিমকে উদ্ধার করে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতালে রেফার্ড করেন।

ভুক্তভোগী সেলিম বলেন, দীর্ঘদিন ধরে মামুনেরা চাঁদা দাবি করে আসছিলো। মামুন কোন কাজ করে না। সে সুদের ব্যবসা করে ও চাঁদাবাজি করে বেড়ায়। আমি চাঁদা দিতে না চাওয়ায় আমার ওপর তারা হামলা করে। আমার কাছে মাছ বিক্রির লাখ খানেক টাকা ছিল তাও তারা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। 

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আব্দুর রাশিদ  বলেন, এব্যাপারে এখনো কোন অভিযোগ দায়ের হয় নি। অভিযোগ হলে তদন্ত করে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।