নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ঈদুল ফিতরের তিন দিনের সরকারি ছুটি শেষে খুলেছে সরকারি-বেসরকারি অফিস। আজ রোববার (১৬ মে) সকাল থেকে সরকারি – বেসরকারি অফিস, ব্যাংক, বীমা ও শেয়ারবাজারে কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

অফিস খুললেও কর্মীদের উপস্থিতি ছিল কম।  কাজকর্ম চলছে ঢিলেঢালা।  সবার মধ্যে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। 

রোববার সকাল থেকে সচিবালয় ঘুরে দেখা গেছে, বেশিরভাগ মন্ত্রণালয় ও বিভাগেই শূন্যতা বিরাজ করছে। কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপস্থিতি কম।  মন্ত্রণালয়গুলোর জরুরিসেবা সংশ্লিষ্ট দু-একটি শাখা খোলা রয়েছে।

সরকারি বেসরকারি ব্যাংক চললেও গ্রাহক উপস্থিতি ছিল কম। বৃহস্পতিবার থেকে ঈদের ছুটি শুরু হয়, তা শেষ হয় শনিবার। 

শুক্রবার দেশে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হয়েছে। করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে আগে থেকেই সরকারের নির্দেশনা ছিল ঈদের ছুটিতে বাধ্যতামূলকভাবে কর্মস্থলে থাকতে হবে।  একই সঙ্গে ঈদের ছুটি একদিন কমিয়েও দেওয়া হয়েছে। গত বুধবার ২৯ রজমানও অফিস খোলা ছিল।

এবার ঈদের ছুটির দুদিনই গেছে শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটির মধ্যে।  করোনা সংক্রমণের কারণে লকডাউনের মধ্যে জরুরি সেবা দেওয়া দপ্তর ছাড়া সরকারি অন্যান্য অফিস বন্ধ রয়েছে।

এপ্রিলের শুরুতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় প্রথমে যানবাহন চালু রেখে লকডাউন দেয় সরকার।  পরে ১৪ এপ্রিল ভোর ৬টা থেকে আট দিনের সর্বাত্মক লকডাউন শুরু হয়।  লকডাউনের মধ্যে পালনের জন্য ১৩টি নির্দেশনা দেওয়া হয় সরকারের পক্ষ থেকে। পরে তিন দফা লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানো হয়। সেই মেয়াদ শেষ হবে আজ রোববার মধ্যরাতে।  বিধিনিষেধের মেয়াদ আরও এক দফা বাড়িয়ে আগামী ২৩ মে পর্যন্ত নেওয়া হচ্ছে।