কয়রা প্রতিনিধিঃ-খুলনার কয়রায় সাংবাদিকদের ওপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ  করেছে কয়রা উপজেলায় কর্মরত সকল সাংবাদিকবৃন্দ। সাংবাদিক সুভাষ দত্তকে সন্ত্রাসীরা মারধরের ঘটনায় এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।  ৭ ডিসেম্বর সোমবার সকাল ১১ টা থেকে বেলা বারোটা পর্যন্ত কয়রা সদরের তিন রাস্তার মোড়ে হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। কয়রা উপজেলার সিনিয়র সাংবাদিক  দৈনিক জন্মভূমি পত্রিকার কয়রা প্রতিনিধি এস এম  হারুন অর রশিদের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, দৈনিক পূর্বাঞ্চল প্রতিনিধি সাংবাদিক সদর উদ্দীন আহমেদ,দৈনিক প্রবাহ প্রতিনিধি রিয়াছাদ আলী,মাষ্টার খায়রুল আলম, দৈনিক ভোরের কাগজ প্রতিনিধি শেখ সিরাজউদ্দৌলা লিংকন, সাংবাদিক আব্দুস সালাম, দৈনিক সময়ের খবর প্রতিনিধি আনিসুজ্জামান,দৈনিক দৃষ্টিপাত প্রতিনিধি শাহবাজ আলী, দৈনিক ভোরের পাতা প্রতিনিধি জিয়াউর রহমান ঝন্টু, দৈনিক যায়যায়দিন প্রতিনিধি হাবিবুর রহমান, দৈনিক দক্ষিণাঞ্চল প্রতিদিন প্রতিনিধি শেখ জাহাঙ্গীর কোবির টুলু, দৈনিক সংযোগ বাংলাদেশ প্রতিনিধি আক্তারুল ইসলাম, দৈনিক খুলনাঞ্চল প্রতিনিধি শাহজাহান সিরাজ, দৈনিক সকালের সময় প্রতিনিধি ওবায়দুল কোবির সম্রাট, দৈনিক নওয়াপাড়া প্রতিনিধি আজিজুল ইসলাম, কহিনুর আলম, আশরাফুল ইসলাম,তরিকুল ইসলাম, ইখতিয়ার উদ্দিন হিরো, দৈনিক নবচেতনা প্রতিনিধি কামাল হোসেন, দৈনিক পত্রদূত প্রতিনিধি নিতিশ সানা,প্রীতিশ মন্ডল,লিটন প্রমুখ। মানববন্ধনে একাত্ততা প্রকাশ করে মানব বন্ধনে বক্তব্য রাখেন কয়রা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম বাহারুল ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শরিফুল ইসলাম টিংকু, কয়রায়  কর্মরত জাতীয়, স্থানীয়, বেসরকারি টিভি চ্যানেলের সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।এসময় সাংবাদিকরা বলেন,আমরা সবার কথা বলি। অথচ আমাদের কথা বলার কেউ নেই।সত্য প্রকাশ করলে খেতে হচ্ছে হামলা মামলা। আমরা সাংবাদিকদের সুরক্ষা চাই। এসময় করোনাকালীনে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে সাংবাদিকদের ওপর হামলা ও ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনায় বক্তারা নিন্দা ও দুঃখ প্রকাশ করে দোষীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবি জানিয়ে আরও বলেন, আমাদের দুর্বল ভাববেন না। সাংবাদিক সমাজ জেগে উঠলে নির্যাতনকারী, হামলাকারীরা টিকে থাকতে পারবে না। সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না হওয়া পর্যন্ত কর্মরত সাংবাদিকরা কর্মসুচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন।প্রসঙ্গত কয়েকদিন আগে চিহ্নিত সন্ত্রাসী বালু দস্যু জাহাঙ্গীর এর বিরুদ্ধে  দৈনিক ভোরের কাগজ সহ কয়েকটি পত্রিকায় নদী  ভাঙ্গন কবলিত মদিনাবাদ লঞ্চঘাট থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের একটি  সংবাদ প্রকাশ করায়, গত ৩ ডিসেম্বর রাত ৯ টায় উপজেলা সদরে বাস স্ট্যান্ডে প্রায় এক ডজন মামলালর আসামী সন্ত্রাসী বাহিনী প্রধান জাহাঙ্গীরের নেতৃত্বে ১৫/২0 জন তিন সাংবাদিকের ওপর হামলার এই ঘটনা ঘটিয়েছে। এব্যাপরে দৈনিক ভোরের কাগজের কয়রা প্রতিনিধি শেখ সিরাজউদ্দৌলা লিংকন বাদী হয়ে ১৪ জনকে আসামী করে কয়রা  থানায় মামলা দায়ের করে।এ খবর লেখা পর্যন্ত গুরুত্বর আহত দৈনিক সমাজের কথা পত্রিকার কয়রা প্রতিনিধি সুভাষ দত্ত খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। হামলাকারী চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা আদালত থেকে জামিন নিয়ে মামলা তুলে নিতে হুমকি অব্যাহত রেখেছে।