আবহাওয়ার পূর্বাভাসে ঝড়-ঝঞ্ঝার আভাস নেই। বলা হচ্ছে আজ রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে বসতে যাওয়া বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) বার্ষিক সাধারণ সভার কথা। গত ১০ বছরের মধ্য এটি হবে বিসিবির তৃতীয় সাধারণ সভা, ২০১৭ সালের পর প্রথম। অথচ দেশের ক্রিকেটাঙ্গনে এ নিয়ে তেমন কোনো আলোচনাই নেই!

একটা সময় বিসিবির বার্ষিক সাধারণ সভা মানেই ছিল তর্ক-বিতর্ক, হইচইয়ের আশঙ্কা। কিন্তু গত কয়েক বছরে নানা কারণে বাংলাদেশের ক্রিকেটের সাংগঠনিক পর্যায়ে প্রতিপক্ষকুল বলে আর কেউ টিকে নেই। এখন প্রায় সবাই একই ছাতার নিচে। সে কারণেই দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থার বার্ষিক সভার আগেও ক্রিকেটাঙ্গন নিরুত্তাপ। আজ দুপুর ১২টায় শুরু হতে যাওয়া সভাটিকে ঘিরে বরং কাউন্সিলরদের মধ্যে একটা চাপা আনন্দই থাকার কথা। এবারের বার্ষিক সভায় যে বিসিবির ১৬৬ কাউন্সিলরের প্রত্যেকেই উপহার হিসেবে পাবেন একটি করে ল্যাপটপ!

কাউন্সিলরদের জন্য বিশেষ উপহার সব বার্ষিক সভায়ই থাকে। তবে এবার উপহারের বাজেটটা একটু বড়। জানা গেছে, বার্ষিক সভা উপলক্ষে ১ কোটি ৪০ লাখ টাকার ওপরে খরচ করে ১৮০টি ল্যাপটপ কেনা হয়েছে, যার প্রতিটির মূল্য প্রায় ৮০ হাজার টাকা। এ ছাড়া জানা গেছে সভায় যোগ দেওয়া কাউন্সিলরদের প্রত্যেককে দেওয়া হবে ১ লাখ টাকা করে।

২০১৭ সালে নাজমুল হাসান দ্বিতীয় মেয়াদে সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর এটিই বিসিবির প্রথম বার্ষিক সভা। আগামী সেপ্টেম্বরেই বর্তমান পরিচালনা পর্ষদের মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে বলে শেষ সভাও বলা যায়। কাল বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, ‘গত তিন বছর নানা সীমাবদ্ধতার কারণে আমরা বার্ষিক সাধারণ সভা আয়োজন করতে পারিনি। আমাদের সংস্থার ধরনই এমন যে নানা রকমের কার্যক্রমের ব্যস্ততা থাকে। এসবের সঙ্গে কোভিড পরিস্থিতিও আছে।’ সভার আলোচ্যসূচির মধ্যে উল্লেখযোগ্য গত তিন অর্থবছরের আয়-ব্যয়সংক্রান্ত নিরীক্ষা প্রতিবেদন অনুমোদন।