ইব্রাহিম আলম সবুজ, রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রাম জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও কুড়িগ্রাম মজিদা আদর্শ ডিগ্রি কলেজের ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক আতাউর রহমান মিন্টুর উপর নাটকীয় হামলার ঘটনার দুদিন পর সম্ভাব্য হামলাকারী মেহেদী হাসান বাঁধনের ব্যবহৃত মোটরসাইকেল ও ৪টি হেলমেট উদ্ধার করেছে রাজারহাট থানা পুলিশ।

বৃহস্পতিবার ১৮ মার্চ ভোরে উলিপুর উপজেলার রানীগঞ্জ ইউনিয়ন থেকে একটি পরিত্যক্ত মোটরসাইকেল ও ৪টি হেলমেট উদ্ধার করা হয়। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রাজারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ রাজু সরকার জানান, বাঁধনের ব্যবহৃত মোটরসাইকেল ও ৪টি হেলমেট জব্দ করা হয়েছে। হামলাকারীদের ধরতে পুলিশ সাঁড়াশি অভিযান অব্যাহত রেখেছে। এই হামলার ঘটনায় পরিবার থেকে এখনো মামলা করা হয়নি। তবে বৃহস্পতিবার বিকেলে পরিবারের লোকজন মামলা করার জন্য থানায় অবস্থান করছে।

এদিকে বর্বরোচিত এ হামলার ঘটনার প্রতিবাদের মানববন্ধন ও সমাবেশ অব্যাহত রয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেফতার ও সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে কুড়িগ্রাম মজিদা আদর্শ ডিগ্রি কলেজের মিন্টুর সহকর্মী শিক্ষকগণ ও শিক্ষার্থীরা। অপরদিকে কুড়িগ্রাম ঘোষপাড়ায় প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে জেলা ছাত্রলীগের বর্তমান ও সাবেক নেতৃবৃন্দ।

মানববন্ধন ও সমাবেশে বক্তব্য রাখেন কলেজের অধ্যক্ষ খাজা শরীফ উদ্দিন রিন্টু, সহকারী অধ্যাপক রাম গোপাল সরকার, প্রভাষক হারুন অর রশীদ, প্রভাষক সুরাইয়া আকতার, প্রভাষক মামুন সেলিম, জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক খন্দকার আনিছুর রহমান চাঁদ, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক মঞ্জহুরুল ইসলাম, জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মমিনুর রহমান মমিন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মিনহাজুল ইসলাম আইয়ুব, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আকতার হাসান প্রমুখ। বক্তারা সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি করেন।

উল্লেখ্য, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও কুড়িগ্রাম মজিদা আদর্শ ডিগ্রি কলেজের ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক আতাউর রহমান মিন্টুকে গত মঙ্গলবার দুপুরে জেলার রাজারহাট উপজেলার ছিনাই ইউনিয়নের পালপাড়া এলাকায় আগে থেকে ওত পেতে থাকা ৫/৬জন সস্ত্রাসী কর্তৃক হামলার শিকার হন। এতে তার ডান হাতের কব্জি শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এছাড়াও তার অপর হাত ও দুই পায়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে দুর্বৃত্তরা। তিনি এখন ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।