সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : ক্রয়কৃত সম্পত্তি জোরপূর্বক জবর দখল করতে না পেরে
নায়েব ভাইয়ের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার ও মারপিটের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন
অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ
অভিযোগ করেন শহরের ইটাগাছা গ্রামের মোঃ রফিকুল ইসলামের স্ত্রী জাহানারা
খাতুন। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, আমার স্বামী বর্তমানে আশাশুনি উপজেলার
আনুলিয়া ইউনিয়ন ভূমিসহকারী কর্মকর্তা (নায়েব) হিসেবে কর্মরত আছেন। তিনি
অত্যান্ত সুনামের সাথে দীর্ঘদিন চাকুরি করে আসছেন। বিগত সময়ে আমার স্বামী
তার চাচাদের কাছ থেকে নিজের এবং আমার নামে বিলান এবং বাস্তুভিটা জমি ক্রয়
করে। স্বামী কর্মস্থলে থাকার কারণে তার সন্ত্রাসী ভাই মাদকাসক্ত আরিফুল
ইসলাম, অন্যান্য ভাই আশরাফুল ইসলাম, আব্দুর রশিদ, শরিফুল ইসলাম ও স্বামী
বোনাই পুস্পকাটি এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও মাদকাসক্ত সাহারাত গং আমার
নামীয় সম্পত্তি জোরপূর্বক জবর দখলের চেষ্টা করে। আমি বাধা দিতে গেলে
ইতোপূর্বে কয়েকবার তারা আমাকে এবং কন্যা-পুত্রকে মারপিট করে গুরুতর আহত
করে। অথচ উল্টো আমার স্বামীর বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করে অবান্তর বক্তব্য
উপস্থাপন করে সংবাদ পরিবেশন করে। গত ফেব্রুয়ারি মাসে স্থানীয় গণ্যমান্য
ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে শালিশী বৈঠকে আমার নামীয় সম্পত্তি ছেড়ে দেওয়ার
সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু তারা সেটা না করে গত ১৬/০৫/২০২০ তারিখে উক্ত
সম্পত্তি মাপ জরিপের সময় স্বামীর সন্ত্রাসী ভাইরা আমাদের উপর অতর্কিত
হামলা চালায়। এসময় আশরাফুল ইসলাম হত্যার উদ্দেশ্যে লোহার রড দিয়ে বাড়ি
মেরে আমার মাথায় মারাত্মক জখম করে। ঠেকাতে গেলে আমার কন্যা, পুত্র এবং
জামাতাকেও মারপিট করে। অথচ এ বিষয়ে উল্টো তাদের মারপিট করা হয়েছে মর্মে
সংবাদ সম্মেলনে মিথ্যাচার করেছে।
তিনি আরো বলেন আমার শ্বশুর ব্রেইন স্টোকে আক্রান্ত এবং অক্ষরজ্ঞানহীন
মানুষ। যে কারণে তাকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে যেখানে সেখানে তাকে উপস্থান
করে আমার স্বামীর বিরুদ্ধে। প্রকৃতপক্ষে তিনি জানেনই না যে তিনি কি
করছেন। ওই স্বার্থলোভী মাদকাসক্ত সন্তানদের ভয়ে তারা যা বলেন তিনি তাই
করেন। আমার শ্বশুর-শ্বাশুড়িকে খেতে না দেওয়া এবং মারপিটের বিষয়টি
সম্পূর্ণ মিথ্যা ভিত্তিহীন। আমার একমাত্র জামাতা ঢাকার একটি ব্যাংকের
কর্মরত আছেন। সে কোন দু:খে আমার বাড়িতে ঘরজামাই থাকবেন? প্রকৃতপক্ষে আমার
নামীয় সম্পত্তি জোরপূর্বক জবর দখল করতে না পেরে উল্লেখিত ব্যক্তিরা আমার
স্বামী এবং জামাতাসহ পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে চরম মিথ্যাচার  করে
সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করছেন। এছাড়া তারা আমার সম্পত্তি
জবর দখল, বাড়ি, ঘর ভাংচুরসহ বিভিন্নভাবে ক্ষতিসাধন করে আসছে।
গত ২১/২/২০২০ তারিখেও উল্লেখিত আরিফুল গং আমার কন্যাকে মারপিট গুরুতর আহত
করে। এঘটনায় কন্যা সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করলে মৌখিকভাবে ক্ষমা চেয়ে সে
যাত্রা রক্ষা পায় তারা। এরপরও তারা আমার সম্পত্তি দখলের উদ্দেশ্যে একের
পর এক এধরনের মিথ্যাচার এবং মারপিট করে যাচ্ছে।
এব্যাপারে তিনি সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রক্ষা এবং সম্পত্তি উদ্ধারের
দাবিতে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ