নিতিশ সানা, কয়রা প্রতিনিধিঃ খুলনার কয়রা উপজেলা সদরে অবস্থিত কয়রা সরকারি মহিলা কলেজের বর্তমান নাম অবৈধ ঘোষণা করে রায় প্রদান করেছেন বিজ্ঞ আদালত। ৩ মার্চ বুধবার কয়রা সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক ফারুক আযম এই রায় প্রদান করেন।

জানা যায়, সাতক্ষীরা জেলার শ্যমনগর উপজেলার গাবুরা ইউনিয়নের বাসিন্দা জি এম সোহরাব আলী কলেজ এরিয়ায়  ৩ বিঘা জমি ও অন্য স্থানে আরও ২২ বিঘা জমিসহ নগদ ১৫ লক্ষ টাকা দিয়ে নারী শিক্ষার বিস্তার লাভে ১৯৯৬ সালে  উপজেলা সদরে তার স্ত্রীর নামে জোবেদা খানম মহিলা কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন।

পরবর্তীতে ২০১১ সালে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া জাতীয়করণের ঘোষণা অনুযায়ী ২০১৬ সালের মার্চ মাসে ওই কলেজের নাম পরিবর্তন করে কয়রা সরকারি মহিলা কলেজ হিসেবে জাতীয়করণ করা হয়।

তবে ২০১১ সালে সরকারি ঘোষণার পর  কয়রা উপজেলার জনৈক মতিউর রহমানের আবেদনের প্রেক্ষিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে ২০১২ সালে জোবেদা খানম  মহিলা কলেজের নাম পরিবর্তন করে কয়রা মহিলা কলেজ রাখা হয়। ওই নাম পরিবর্তনকে চ্যালেঞ্জ করে জোবেদা খানম বাদি হয়ে প্রথমে মহামান্য হাইকোর্টে রিটপিটিশন করেন। রিট পিটিশনের শুনানি আন্তে মহামান্য হাইকোর্টের নির্দেশনা মোতাবেক দেওয়ানী আদালতে মামলা করে স্বাক্ষী প্রমান গ্রহনের জন্য    কয়রা সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে দেঃ ১১১/২০১৫ নং মোকদ্দমা দায়ের করেন। মোকদ্দমায় দোতরফা বিচারে ওই নাম পরিবর্তনকে অবৈধ ঘোষণা করে বিজ্ঞ আদালত রায় প্রদান করেন। বাদী পক্ষের মামলাটি পরিচালনা করেন এ্যাডঃ সুধাংশু কুমার সরকার ও এ্যাডঃ অম্বিকা চরন সানা। বিবাদী পক্ষে মামলটি পরিচালনা করেন আলহাজ্ব এ্যাডঃ কেরামত আলী।