নিজস্ব প্রতিবেদক

ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার যশোর-চুয়াডাঙ্গা হাইওয়ে সড়কের খালিশপুর বাজারে যুবলীগের একাধিক ঈদ শুভেচ্ছা গেট, বিলবোর্ড, ব্যানার, ফেস্টুন ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। ঈদ শুভেচ্ছা গেটগুলি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা শেখ মণি, যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ শেখ ফজলে শামস পরশ এবং সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খাঁন নিখিল ছবি দিয়ে সুসজ্জিত করা হয়েছিল।

এসব ভাংচুরের সঙ্গে কে বা কারা জড়িত এমন প্রশ্নের উত্তরে স্থানীয় যুবলীগ নেতা-কর্মীরা স্থানীয় এমপি শফিকুল আজম খান চঞ্চলের কর্মী সমথর্কদের প্রতি স্পষ্ট ইঙ্গিত করেন।

কারণ হিসেবে স্থানীয় যুবলীগ নেতারা অভিযোগ করেন, এলাকার সাবেক এমপি অধ্যক্ষ নবী নেওয়াজ যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য হওয়ার পর থেকেই বর্তমান এমপি শফিকুল আজম খান চঞ্চল সমথর্করা অনেকটা প্রকাশ্যেই যুবলীগ হঠাও কার্যক্রম চালাচ্ছেন। তারা যুবলীগের সকল কর্মসূচিতে প্রায় প্রকাশ্যেই বাধা দিয়ে আসছেন।

এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ-৩ মহেশপুর কোটচাঁদপুর এলকার এমপি শফিকুল আজম খান চঞ্চলের সঙ্গে টেলিফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।