চুয়াডাঙ্গায় জেলা প্রতিনিধি, এম এ জলিলঃ চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলা ৩নং কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের কার্পাসডাঙ্গা পশ্চিম পাড়ার খৃষ্টান পল্লীর প্রবিন আঃলীগ নেতা বিভুদান মন্ডলের বাঁচার আকুতি। তার রাজনৈতিক জীবন শুরু হয় ১৯৭০ সালের জাতীয় নির্বাচনে।

যার জন্ম না হলে স্বাধীন বাংলাদেশ হতো না সারা বিশ্বে মাথা উচুকরে লাল-সবুজের পতাকা উড়তোনা সেই ক্ষনজন্মা মহা-পুরুষ বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া বাংলাদেশ আঃলীগের নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার মধ্যদিয়ে রাজনীতি শুরু করেন।
লেখা-পড়া তেমন জানেনা পা.ফাটা গুড়লী চেরা সহজ-সরল মানুষ এই বিভুদান মন্ডল। এরই মধ্যে জীবন খাতাই থেকে পেরিয়ে গেছে ৭৮টি বছর কিন্তু দলের কাছে তিনি কিছুই চাইনি। আজ রোগে-শোগে কাতর হয়ে বরই অসোহায় দারিদ্রতার কশাঘাতে ক্ষত-বিক্ষত। একদিকে শ্বাস কষ্ট অপর দিকে হারনিয়া রোগে আজ পাঁচমাস যাবত বিছানা গত।বিছানাতে অসাড় দেহ পড়ে আছে হাড়কটি অর্থের অভাবে চিকিস্যা নিতে পারছেন না। দল ক্ষমতাই আজ পর্যন্ত কোন আঃলীগ নেতা চোখের দেখাটাও দেখতে আসেনা।

তার জীবন বাঁচানোর জন্য সবাই কে এগিয়ে আসার জন্য অনুরুধ জানিয়েছেন বেভুদান মন্ডল। বেভুদান মন্ডল আফসোস করে কাঁদতে কাঁদতে বলেছেন দৈনিক এই আমার দেশ এর কাছে আওয়ামী লীগের ত্যাগি নেতা কর্মিদের মুল্য নেই। মুল্য আছে নব্য-আওয়ামী লীগের নেতাদের। ভোট আসলে খৃষ্টান পল্লীর ভোটের কাছে ভোট চাইতে আসে নেতা কমীরা। শেষ আর পাঁচ বছর কোন নেতার দেখা মেলেনা।

বেভুদান আরো বলেন আমার এলাকার চেয়ারম্যান, উপজেলার চেয়ারম্যান, এমপি,জেলা প্রশাসক মহাদয়,আমার দেশের মমতাময়ী মা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আকুল আবেদন আমি এই দেশের মাটিতে আর কিছু দিন বেঁচে থাকতে চাই। আমার আর কিছু চাইবার নাই কারো কাছে