যুক্তরাজ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তাপপ্রবাহ চলছে। এ সে ধরনের তাপমাত্রা পুরুষদের তুলনায় নারীদের জন্য অনেক বেশি ঝুঁকি তৈরি করতে পারে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা। বিভিন্ন দেশের তাপমাত্রাজনিত পরিস্থিতি বিশ্লেষণের ভিত্তিতে বিশেষজ্ঞরা এমন মত দিয়েছেন বলে জানায় দ্য গার্ডিয়ান।

সাম্প্রতিক সময়ে প্রচণ্ড দাবদাহের কারণে বেসামাল অবস্থায় আছে যুক্তরাজ্যসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশ। স্পেন, পর্তুগালসহ কয়েকটি দেশে দাবানল ছড়িয়ে পড়েছে। যুক্তরাজ্যের তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছাড়াতে পারে বলে আভাস দিয়েছে স্থানীয় আবহাওয়া বিভাগ।

প্রচণ্ড গরমের কারণে সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের সরকার বিভিন্ন রাজ্যে দেওয়া সতর্কবার্তায় বলেছে, ৭৫ বছরের বেশি বয়সী, শিশু, শারীরিক ও মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তি এবং নারীরা উচ্চঝুঁকিতে আছেন। অবশ্য নারীদের কেন এই তালিকায় রাখা হয়েছে, সে ব্যাপারে ওই বার্তায় ব্যাখ্যা দেওয়া হয়নি।

নেদারল্যান্ডসে করা একটি গবেষণা প্রতিবেদন বলছে,তাপমাত্রা বাড়ার কারণে পুরুষদের তুলনায় নারীরা বেশি উচ্চ ঝুঁকিতে থাকেন। বিভিন্ন তাপপ্রবাহ পরবর্তী সময়ে মারা যাওয়া মানুষদের তথ্য বিশ্লেষণের ভিত্তিতে ওই গবেষণা করা হয়। যুক্তরাজ্যের হেলথ সিকিউরিটি এজেন্সি এই গবেষণার প্রতি গুরুত্ব দিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, পুরুষদের তুলনায় নারীদের মধ্যে গরমজনিত মৃত্যুহার বেশি। বিশেষ করে, চরম গরমের মধ্যে বসবাসকারী বয়স্ক ব্যক্তিদের (৮০ বছর) মধ্যে এ প্রবণতা বেশি।

আমস্টারডামের ভি ইউ বিশ্ববিদ্যালয়ের শরীরবিদ্যাবিষয়ক অধ্যাপক হেইন দানেন জানান, গবেষক দলটি ধারণা করছে, নারীদের শরীরে ঘাম কম হওয়ার বিষয়টি এ ক্ষেত্রে ভূমিকা রেখেছে।