কাজী ওহিদ, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ গোপালগঞ্জ জেলা পরিষদের উদ্যোগে জেলার এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ মেধাবী ছাত্র—ছাত্রীদের এককালীন বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

১১ মার্চ বৃহস্পতিবার দুপুরে গোপালগঞ্জ জেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা চৌধুরী এমদাদুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন গোপালগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার আয়েশা সিদ্দিকা পিপিএম সেবা। 

জেলা পরিষদের সদস্য মো. লুৎফর রহমান (লুথু) মিয়া’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি  ছিলেন জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবু ইউসুফ মোহাম্মদ রেজাউর রহমান, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মুহাম্মদ সিদ্দিকুল ইসলাম, প্যানেল মেয়র শেখ শাহাবুদ্দিন (হিটু)। 

এ সময় স্বাস্থ্যবিধি মেনে অন্যদের মধ্যে জেলা পরিষদের সহকারী প্রকৌশলী শরীফ মুনির হোসেন, উপ—সহকারী প্রকৌশলী এটিএম সাদিকুর রহমান, সদস্য (সংরক্ষিত আসনের) হাসিয়া বেগম, সাধারণ সদস্য শরীফ সোহরাব হোসেন, শাহরিয়ার কবির বিপ্লব, প্রধান সহকারী শা.ম. রেজাউল হাসান, জেলায় বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ায় কর্মরত গণমাধ্যমকর্মী, বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা ও তাদের অভিভাবকগণ উপস্থিত ছিলেন। 

প্রধান অতিথি বৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীকে প্রকৃত জ্ঞান অর্জনের পাশাপাশি মানবীয় গুণাবলী অর্জন করে বঙ্গবন্ধু’র স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে সকলের সক্রিয় অংশগ্রহণ প্রত্যাশা করেন। গোপালগঞ্জ জেলা পরিষদের উদ্যোগে ২০১৯ সালে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ৫৮ জন ছাত্র ও ৫৮ জন ছাত্রী সহ মোট ১০৮ জন মেধাবী শিক্ষার্থীকে এককালীন পাঁচ হাজার টাকা বৃত্তি প্রদান করা হয়েছে। 
এর আগে জেলা পুলিশ সুপার আয়েশা সিদ্দিকা গোপালগঞ্জ জেলা পরিষদে পৌঁছালে সেখানে তাকে পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা চৌধুরী এমদাদুল হকের নেতৃত্বে পরিষদের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ ফুল ও সম্মাননা ক্রেস্ট দিয়ে অভিনন্দন জানান।