কামরুল ইসলামঃ লোহাগাড়া উপজেলার চরম্বা ইউনিয়নের দক্ষিণ মাইজবিলা নোয়ারবিলা রাস্তাটি দীর্ঘদিন ধরে বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। সংস্কারের অভাবে সাধারণ জনসাধারণের চরম দুর্ভোগে ধারণ করছে।

সরজমিনে পরিদর্শনে গিয়ে জানা যায়, উপজে্লার চরম্বা দক্ষিণ মাইজবিলা-নোয়ারবিলা রাস্তাটি সংস্কারটি দীর্ঘদিন ধরে বেহলা দশার কারণে বর্ষার মৌসমে ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়ে।

গেল ৩/৪দিনের ভারী বর্ষণের কারণে সড়কটির বিভিন্ন অংশে পানি জমে কাদায় ভরপুর।এই রাস্তা দিয়ে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা ও সাধারণ জনগণ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে। সিএনজি রিক্সা নিয়ে যাতায়াত করার সময় গাড়ি গর্তে ঢুকে পড়ে। প্রতি বছরে ফসল কাটার মৌসুমে এই রাস্তা দিয়ে বিভিন্ন পরিবহনের মাধ্যমে কৃষকরা তাদের উৎপাদিত ফসল ঘরে তোলেন। রাস্তাটি ক্ষতবিক্ষত হওয়ার কারণে প্রান্তিক কৃষকরা ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। সামান্য বৃষ্টির পানিতে সড়কটিতে পানি জমে যায়। কাঁদা ভর্তির কারণে হাটার সময় পা পিছলে পড়ে যায়।

মাইজবিলা গ্রামের বাসিন্দা, প্রবাসী ও আওয়ামীলীগ নেতা এমদাদ উল্লাহ জানান, সংস্কারের অভাবে রাস্তটির বেহাল অবস্থা পড়ে আছে। আমাদের এলাকার লোকজন, মা বোনেরা যাতায়াত করতে রীতিমত হিমশিম খাচ্ছে। আমরা প্রবাসে থাকি বিদেশ থেকে কয়েক মাসের জন্য দেশে গেলে রাস্তার কারণে ঠিক ভাবে চলাফেরা করতে পারি না।
তাই আমি আমাদের মাননীয় সাংসদ,উন্নয়নের সফল কান্ডারী প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী এমপি মহোদয়ের কাছে রাস্তাটি দ্রুত সংস্কারের জন্য এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে অনুরোধ জানাচ্ছি।

চরম্বা ইউপির ৭নং ওয়ার্ড মেম্বার মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন জানান, সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে বেহাল দশায় পড়ে আছে। সড়কটির বেহাল দশার বিষয়টি স্হানীয় চেয়ারম্যান কে অবহিত করেছি।

চরম্বা ইউপি চেয়ারম্যান মাষ্টার মুহাম্মদ শফিকুর রহমান বলেন, রাস্তাটি সংস্কারের জন্য এমপি মহোদয়ে ডিও লেটার মাধ্যমে স্হানীয় সরকারের প্রকৌশলী অধিদপ্তরের বরাবরে দেওয়া হয়েছিল। দুঃখের বিষয় রাস্তাটি সংস্কারের উদ্যোগ নিচ্ছে না সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।তাই সড়কটি দ্রুত সংস্কারের জন্য মাননীয় সাংসদের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার(ইউএনও) মোঃ আহসান হাবীব জিতু জানান, সড়কটি পরিদর্শন করে দ্রুত সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়ার জন্য উপজেলা প্রকৌশলীকে নির্দেশনা প্রদান করা হবে।

উক্ত সড়কটি দ্রুত সংস্কারের জন্য সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন স্হানীয় এলাকাবাসী।