চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গায় ভুয়া পুলিশ পরিচয়ে আন্তঃজেলা মোবাইল ফোন ছিনতাই চক্রের মূলহোতাসহ দুইজনকে গ্রেফতার করেছে চুুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে একটি খেলনা পিস্তল, ৬টি মূল্যবান মোবাইল ফোন ও একটি মোটরসাইকেল।

আজ রোববার (১ আগস্ট) ভোরে পার্শ্ববর্তী ঝিনাইদহ জেলা ও মহেশপুর উপজেলা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

পরে দুপুর আড়াইটার সময় চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় এক সংবাদ সম্মেলনে ওই তথ্য জানান জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) জাহাঙ্গীর আলম। তিনি জানান, গত ১৭ জুলাই ও গত ২৬ জুলাই চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার উক্ত গ্রামসহ ভুলটিয়া এবং কিরোনগাছি গ্রামের সড়কের পাশে মোবাইল ফোনে ফ্রি ফায়ার গেমসসহ লুডু গেমস খেলার সময় ৩-৪ জনের একটি দল নিজেদেরকে পুলিশ পরিচয় দিয়ে ওই এলাকার যুবক ও কিশোরদের আটক করে। এসময় তারা যুবকদেরকে কিল ঘুষি ও চড় থাপ্পড় মেরে তাদের কাছে থাকা ৬টি মূল্যবান মোবাইল ফোন ছিনতাই করে পালিয়ে যায় পুলিশ পরিচয় দেওয়া সংঘবদ্ধ চক্রটি। পরে গত শনিবার সকালে বাদী হয়ে একটি লিখিত অভিযোগ করেন সদর উপজেলার উক্ত গ্রামের আনোয়ার হোসেন নামে এক ব্যক্তি। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঝিনাইদহ ও মহেশপুর এলাকায় আজ রোববার ভোর সাড়ে ৩টা থেকে সাড়ে ৫টা পর্যন্ত অভিযান চালায় চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশ। এসময় আন্তঃজেলা মোবাইল ফোন ছিনতাই চক্রের মূলহোতা ইসমাইল খান আরিফ ও তার সহযোগী উত্তম কুমার ঘোষকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে তাদের কাছ উদ্ধার করা হয় একটি খেলনা পিস্তল, ছিনতাই হওয়া ৬টি মোবাইল ফোন ও তাদের ব্যবহৃত একটি মোটরসাইকেল। চক্রটির বাকী সদস্যদের গ্রেফতারে অভিযান চালানো হচ্ছে।
চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জিহাদ ফকরুল আলম খাঁন জানান, মোবাইল ফোন ছিনতাইকারী প্রতারক চক্রের ব্যবহৃত খেলনা পিস্তলটি অনলাইন মার্কেট প্লেস দারাজ থেকে কেনা। তিনি আরও জানান, গ্রেফতারকৃদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক চক্রটির বাকী সদস্যদের গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।