এইচ এম হাকিম, স্টাফ রিপোর্টারঃ চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর উপজেলার সীমান্ত ইউনিয়নে যাদবপুর থেকে দত্তনগর কাঁচা সড়কটির বেহাল দশা,নির্বাচনের সময় অনেক জনপ্রতিনিধি রাস্থাটি করে দেবার প্রতিশ্রতি দিলেও কয়েট বার স্থানীয় নির্বাচন, উপজেলা নির্বাচন চলে গেলেও এই এলাকার মানুষের ভোগান্তি এখনো কমেনি,দত্তনগর থেকে যাদপুরের মধ্যে বর্তী প্রায় দেড় কিলোমিটার সড়কের নাজেহাল অবস্থা চোঁখে পরার মতো, খানা খদ্দের কারণে প্রতিনিয়তো ভোগান্তির শিকার হচ্ছে এ গ্রামের মানুষ।যাদবপুর পূর্ব পাড়া নামক স্হানে রাস্তা অর্ধেকের বেশি ভাঙ্গা থাকার কারর্ণে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে স্কুল পরুয়া ছাত্র ছাত্রী সহ দুই গ্রামের অসংখ্য মানুষ। যাদবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রী ও দত্তনগর হাই স্কুলের ছাত্র ছাত্রীদের চলাচলে চরম ভোগান্তিক শিকার হচ্ছে প্রতিনীয়তো।

প্রতিনিয়তো এই রাস্তাটি দিয়ে চলাচল করে স্হানীয় জন প্রতিনিধিসহ ক্ষমতাসীন দলের নেতা কর্মিরা।তারা প্রায় সবাই দেখে ও না দেখার ভান করে রয়েছে। এ ব্যাপারে যাদবপুর গ্রামের বাসিন্দা মোঃ রুহুল আমিন বলেন কি বলবো আর দুঃখের কথা এমন একটি উপজেলার বাস করি আমরা যে উপজেলার কর্মীর চাইতে নেতার সংখ্যা বেশি। অনেক জনপ্রতিনিধি অনেকবার কথা দিয়েছে কিন্তু আমাদের অবহেলিত সরকের আজ পর্যন্ত কোন ব্যাবস্থা হয়নি।
যাদপুর গ্রামের আরিফুল ইসলাম বলেন আমার জন্মের পর থেকে দেখছি এই সড়কের বেহাল দশা, আমার বয়স ৩০ বছর পার হয়ে গেলেও আজ পর্যন্ত এই সড়কের কাজ হলোনা, যানিনা আর কতো বছর পার হলে স্কুল পরুয়া কোমলমতি ছাত্র ছাত্রী সহ আমাদের ভোগান্তির শেষ হবে,

এ ব্যাপারে সীমান্ত ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের এর সাথে কথা বললে, তিনি বলেন আমি এখন নির্বাচন নিয়ে ব্যাস্থ আছি, আমার এখন কিছুই করার নেই,

জীবননগর উপজেলা চেয়ারম্যানের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করলে বলেন,এখন আপাদত বাজেট নেই, এর পরে বাজেট আসলেই দত্তনগর যাদবপুর রাস্থার কাজ করা হবে।