মেহেদী হাসান খান ( সরিষাবাড়ী প্রতিনিধি):-

র‍্যাব-১৪, জামালপুর ক্যাম্প  কর্তৃক চাঞ্চল্যকর আত্মহত্যার মামলার প্ররোচনাকারী প্রধান আসামী  ১৪ ঘন্টার মধ্যে  গ্রেফতার। জানা যায়, আশামনি মেলান্দহ থানাধীন মালঞ্চ এমএ গফুর উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীতে লেখাপড়া করত।তার স্কুলে যাওয়া আসার সময় ধৃত আসামী  তামিম আহমেদ স্বপন রাস্তার মধ্যে তাকে উত্ত্যক্ত করত এবং প্রেমের প্রস্তাবসহ শারিরীক সম্পর্ক করার কথা বলত। বিষয়টি তার বাবা মাকে জানায়, কিন্তু মান সম্মানের ভয়ে তার বাবা মা বিষয়টি কাউকে কিছু বলে না। ধৃত আসামী মোঃ তামিম আহাম্মেদ স্বপন বিভিন্ন সময়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে

আশা মনির সাথে দৈহিক সম্পর্ক স্থাপন করার চেষ্টা করত। গত ১০/০৩/২০২২ খ্রিঃ তারিখ সকাল অনুমান ০৯.৩০ টা আশামনি তার বান্ধবীদের সাথে কথা বলে বাড়ী হতে তার স্কুলের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়। ঐ দিন বিকাল অনুমান ০৩.৩০ এ বাড়ীতে এসে গোসল করে খাওয়া দাওয়া শেষ করে তার বাবার বসত ঘরের মাঝখানের তার রুমের ভিতর দরজা বন্ধ করে ঘুমিয়ে পড়ে। ঐ দিন সন্ধ্যা অনুমান ০৬.৩০টা আশামনি ঘুম থেকে  জাগ্রত না হলে তার মা রুমের সামনে গিয়ে তাকে  ডাকাডাকি করলে কোন সাড়াশব্দ না দেওয়ায় এবং ভিতর থেকে দরজা বন্ধ থাকায় রুমের পিছন দিয়ে জানালার পাল্লা খুলে দেখেন যে, আশামনি  ঘরের বাঁশের ধন্নার সাথে তার ব্যবহৃত ওড়না দিয়ে ফাঁসিতে ঝুলে আছে। তখন তার  মায়ের ডাক চিৎকারে আশে পাশের লোকজন এসে পাশের রুমের উপর দিয়ে রুমের দরজা খুলে। পরবর্তীতে তাকে ফাঁসি হতে নামিয়ে দ্রুত মেলান্দাহ সরকারী হাসপাতালে নিয়ে যায়, হাসপাতালে দায়িত্বরত চিকিৎসক আশামনি কে দেখে মৃত ঘোষনা করেন। এখানে উল্লেখ্য যে, আশামনি মান ইজ্জত রক্ষা ও আসামী মোঃ তামিম আহম্মেদ স্বপন কর্তৃক তাকে সম্ভ্রম হানির কারণে কাউকে কোন কিছু না বলে সকলের অগোচরে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। উক্ত ঘটনার পর থেকে আসামী মোঃ তামিম আহম্মেদ স্বপন এলাকার বাহিরে গিয়ে আত্মগোপন করে পলাতক ছিল। র‍্যাব-১৪, সিপিসি-১, জামালপুর ক্যাম্পের প্রতিনিধি উক্ত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং র‍্যাব ছায়া তদন্ত শুরু করে আসামী গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যহত রাখে। উক্ত ঘটনা সংক্রান্তে মেলান্দাহ থানায় গত ১১/০৩/২০২২ খ্রিঃ তারিখে দুপুর ১২.১৫ ঘটিকায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ সালের সংশোধনী ২০০৩ এর ৯(ক) মোতাবেক আত্মহত্যার প্ররোচনার অপরাধে একটি মামলা দায়ের করা হয়। পরবর্তীতে র‍্যাবের নিজস্ব তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে আসামীর অবস্থান নিশ্চিত করে, অদ্য ১২/০৩/২০২২ ইং তারিখ আনুমানিক রাত্রি ০২.০০ ঘটিকায় র‍্যাব-১৪ এর একটি আভিযানিক দল ময়মনসিংহ জেলার সদর থানাধীন অষ্টধর ইউনিয়নের চরশশা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে উক্ত মামলার এজাহার নামীয় প্রধান আসামী মোঃ তামিম আহম্মেদ স্বপন (২৫), পিতা-খোকা মোল্লা, সাং-মধুপুর কান্দাপাড়, থানা-মেলান্দাহ, জেলা-জামালপুরকে গ্রেফতার করা হয়। ঘটনার মাত্র ১৪ ঘন্টার মধ্যে পলাতক আসামীকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।
আশিক উজ্জামান
স্কোয়াড্রন লিডার
কোম্পানী কমান্ডার
র‍্যাব-১৪, সিপিসি-১, জামালপুর  জানান, গ্রেফতারকৃত আসামীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে উপরোক্ত ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে। আসামীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।