জীবননগর (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি:চুয়াডাঙ্গার জীবননগর থানায় বুধবার ডিউটি অফিসার হিসাবে কর্মরত সাব-ইন্সপেক্টর রকি মন্ডলের বিরুদ্ধে থানায় আগতদের সাথে অসৌজন্যমুলক আচরনের অভিযোগ উঠেছে। এ ছাড়াও তার বিরুদ্ধে মানুষকে হয়রানি করারও অভিযোগ রয়েছে।জীবননগর শহরের মিল-চাতাল ব্যবসায়ী মাসুদ পারভেজ রানা ওরফে বাবু বলেন,আমি বুধবার দুপুরের দিকে থানায় একটি জিডি করতে যাই। আমার সাথে জীবননগর পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর খোকন ভাইও ছিল। ওই থানার ডিউটি অফিসার এসআই রকি মন্ডল বলেন,কি বিষয়? আমি তখন আমার লেখা কাগজটি তার হাতে দিলে তিনি জিজ্ঞাসা করে বলেন কি বিষয় বলেন,তখন আমি বলি টাকা পাওনা টাকা চাওয়ার ব্যাপারে আমাকে হুমকি দেয়া হচ্ছে তাই আমি একটি জিডি করতে চাই। কিন্তু তিনি লেখা কাগজটি না পড়েই আমার সাথে খারাপ আচরন করে এবং বলে যান টাকার ব্যাপারে কোন জিডি হবে না। এই সময় আমরা তাকে বলি আপনি তো কোন কিছু না পড়েই আমাদের সাথে খারাপ আচরন করছেন কেন? তিনি তখন আরো ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন,পাওনা টাকার অংকটি বাদ লিখে নিয়ে আসেন বলে কাগজ দুটি ছুড়ে ফেলে দেয়।
সাব-ইন্সপেক্টর রকি মন্ডলের ব্যাপারে থানাপাড়া খোঁজখবর নিয়ে জানা যায়,তিনি যখনই ডিউটি অফিসার হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন,তখনই থানায় আগতদেরকে কোন কিছু বুঝিয়ে না বলে তাদের সাথে উগ্র আচরন করে থাকেন। তার বিরুদ্ধে আরো অভিযোগ তার নিকট থেকে টাকা ছাড়া মানুষ কোন সেবা পান না। টাকা দিলে ভাল,নয় তো মুখ কালো।
এ ব্যাপারে ওয়ার্ড কাউন্সিলর জামাল হোসেন খোকন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,আমি ডিউটি অফিসার রকি মন্ডলের আচরন দেখে হবাক হয়েছি। আমাদের মত মানুষের সাথে যদি এমন আচরন করেন তাহলে সাধারন মানুষের সাথে কেমন আচরন করেন তা তো আর বলার অপেক্ষা রাখে না।  ঘটনার ব্যাপারে থানার ওসি সাইফুল ইসলামকে জানানো হয়েছে।
এ ব্যাপারে জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলামের নিকট মোবাইল ফোনে জানতে চাওয়া হলে তিনি কোন মন্তব্য না করে বলে ঘটনাটি আমি দেখছি