এইচ এম হাকিম, স্টাফ রিপোর্টারঃ চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর উপজেলার বাঁকা ইউনিয়নের মিনাজপুর কমিউনিটি ক্লিনিকের বেদখল জমি পুর্ন উদ্ধারে রবিবার সকাল ১০ টায় জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সর পরিবার পরিকল্পনা কর্মকরতা সেলিনা আক্তারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন জীবননগর উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্টেড (ভুমি) মোঃ মহিউদ্দিন, বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্যে রাখেন জীবননগর উপজেলা আওয়ামিলীগের সভাপতি গোলাম মোর্তুজা, বাঁকা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের প্রাধান,জীবননগর সাংবাদিক সমিতির সভাপতি জিএ জাহিদুল ইসলাম বাবু, জীবননগর থানা পুলিশের পক্ষে এস আই হেলেনা এবং এস আই আমির হোসেন,প্রমুখ।
প্রসঙ্গ জীবননগর উপজেলার বাঁকা ইউনিয়নের মিনাজপুর কমিউনিটি ক্লিনিকের ৮.৭৫ শতক জমির ভিতরে প্রায় ৩.০০ শতক জমি দখল করে রেখেছে কমিউনিটি ক্লিনিকের সাথে বসবাস রতো আব্দুর রহিমের স্ত্রী,সাবেক ইউপি সদস্য রহিমা বেগম, দীর্ঘদিন যাবৎ জোরপূর্বক নিজের ক্ষমতার প্রভাব দেখিয়ে জমিটি নিজের দখলে রাখে, কয়েক বার মিনাজপুর গ্রামের সুধি ব্যাক্তিরা বেদখল জমিটি পূর্ণ উদ্ধারে চেষ্টা চালিয়ে ব্যার্থ হয়।কয়েক দফায় কমিউনিটি ক্লিনিকের পক্ষ হতে রহিমার বাড়িতে জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বসার কথা বলেও কোন সারা পাওয়া যায়নি।
এ বিষয়ে মিনাজপুর কমিউনিটি ক্লিনিকে সেবা নিতে আশা ভুক্তভোগীরা বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিকের পাশশে নানা প্রকার ময়লা আবর্জনা ফেলে নানা ভাবে পরিবেশ দুষন করে আসছে আঃ রহিমের স্ত্রী রহিমা বেগম, আমরা প্রায় দেখি রহিমা বেগম ক্লিনিকে সেবা দেওয়া স্বাস্থ্য কর্মিকে বিভিন্য প্রকার গালী গালাজ থেকে শুরু করে নানা ভাবে অত্যাচার করছে প্রতিনিয়তো।
মিনাজপুর কমিউনিটি ক্লিনিকের জমিটি যাতে রহিমার কাছ থেকে পূর্ণ দখল করা যায় সে ব্যাপারে মিনাজপুর এলাকা বাসি পরিপূর্ণ ভাবে মতপ্রকাশ করেন।তিনি এ সিদ্ধান্ত না মানলে পরবর্তিতে আিনের আশ্রয় নেওয়া হবে।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন,মিনাজপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল বাশার,সহকারী শিক্ষক আঃ করিম, বাঁকা ইউপি সদস্য মুহিদুল ইসলাম,ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলাম, কামাল হোসেন, শফিকুল ইসলাম, ডাঃ শফি, মাজেদুর রহমান লিটন, চাঁদআলী, প্রমুখ।