সাইফুল ইসলাম : ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই পছন্দের ব্যক্তিকে প্রার্থী হিসেবে দেখার প্রত্যাশা সমর্থকদের বেড়েই চলেছে। এজন্য আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে টাঙ্গাইলের মধুপুরের ৩ নং বেরীবাইদ ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান জুলহাস উদ্দিনকেই আবারো নৌকার মাঝি হিসেবে দেখতে চায় এলাকাবাসী। প্রার্থী হিসেবে এবারো বেরীবাইদ ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে আলোচনার শীর্ষে সমাজসেবক, সফল ইউপি চেয়ারম্যান, স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যান জুলহাস উদ্দিন। তিনি তরুণ বয়সেই একবার ইউপি সদস্য ও দক্ষতা ও সততার কারনেই পরের নির্বাচনেই বেরীবাইদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসেবে জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে সুনামের সহিত দায়িত্ব পালন করছেন।

নির্বাচনী মাঠে তিনি সবার পরিচিত ও সদা হাস্যজ্জোল মানুষ। এলাকার যেকোনো মানুষ সমস্যায় পড়লে ছুটে যান তিনি। দুস্থ, অভাবী, কর্মহীন মানুষকে সাহায্য করা, যুবসমাজকে আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত-ক্রীড়ামোদী করে গড়ে তোলা, এলাকার উন্নয়নে সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করাই তার প্রধান লক্ষ্য।

কৃষিমন্ত্রীর সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করলেন চেয়ারম্যান জুলহাস উদ্দিন

এলাকার বিভিন্ন বয়সের মানুষের সাথে কথা বলে জানা গেছে, দক্ষ সংগঠক, নিরাহংকার ব্যক্তি ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বের কারনে তারা আবারো জুলহাস উদ্দিনকে তাদের মূল্যবান ভোট দিতে চায়।বেরীবাইদ ইউনিয়নের উন্নয়নে তার বিকল্প নাই। তাই এলাকার যুবসমাজ, ছাত্র শিক্ষক, কৃষক, জেলে, শ্রমিক, বৃদ্ধ-বণিতাসহ সকল শ্রেনী-পেশার মানুষ শৈশবকাল থেকে রাজনীতিতে নিবেদিত প্রাণের সমাজসেবক জুলহাসের পক্ষে সকলেই এবার ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রচার প্রচারণায় মাঠে নেমেছেন। তারা বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও কৃষিমন্ত্রী ডা. আব্দুর রাজ্জাক এমপি একজন প্রার্থীর সকল কিছু বিচার বিশ্লেষন করে জুলহাস উদ্দিনকেই আবারো নৌকা প্রতীক দিলে অবশ্যই বিজয়ী হবে। আর এতে করে আওয়ামীলীগের সুনাম, ঐতিহ্য টিকিয়ে রাখা সম্ভব হবে এবং বেরীবাইদ ইউনিয়নে উন্নয়নের আরও নব দিগন্ত সৃষ্টি হবে বলে প্রত্যাশা করছেন ইউনিয়নের বিভিন্ন স্তরের মানুষ।

তাই সমাজের সার্বিক উন্নয়নে এবারের আসন্ন নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আবারো প্রার্থী হতে ইতিমধ্যেই দ্বিতীয়বারের মতো আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী জুলহাস উদ্দিন এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে মাঠে নেমেছেন। সবসময় সকল কর্মকান্ডে জনগনের অংশগ্রহন ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করাসহ আধুনিক ইউনিয়ন গঠন করতে চান তিনি। একই সাথে মাদক, সন্ত্রাস ও দুর্ণীতি প্রতিরোধসহ জনসচেতনতামুলক কর্মসুচি গ্রহন করতে চান।

এবারের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহন প্রসঙ্গে বর্তমান চেয়ারম্যান জুলহাস উদ্দিন বলেন, আমি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের সংগঠন, দেশরত্ন শেখ হাসিনার প্রিয় সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে ছাত্রজীবন থেকেই জড়িত। আমি বেরীবাইদ ইউনিয়নকে একটি আদর্শ ইউনিয়নে পরিণত করতে চাই, সেইসাথে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা, উন্নয়নশীল রাষ্ট্র বিনির্মাণে সহযোগীতা করতে চাই। আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি সম্পন্ন ডিজিটাল ইউনিয়ন গঠনসহ সকল কর্মকান্ডে জনগনের অংশগ্রহন ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করাই হবে আমার লক্ষ্য। সারাদেশের মধ্যে সন্ত্রাস, দূর্নীতিমুক্ত মডেল ইউনিয়ন হবে বেরীবাইদ ইউনিয়ন।

সৎ যোগ্য ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে সর্বদা সোচ্চার জুলহাস উদ্দিন বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে এবং বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন বাস্তবায়নে আমি সবসময় মানুষের পাশে ছিলাম, আছি এবং থাকবো। আমি গরীব দুঃখীদের সেবা করতে পারলেই খুশি হই। আসন্ন নির্বাচনে আমি পুনরায় দলের মনোনীত প্রার্থী হয়ে আধুনিক ও উন্নত ইউনিয়ন গঠনের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে চাই।