হালিম সৈকত,  কুমিল্লা প্রতিনিধিঃ কুমিল্লার তিতাসে আটকৃত আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য  শরীফ আহম্মেদ সরকারের দেয়া তথ্যমতে আরও এক ডাকাতকে আটক করেছে তিতাস থানা পুলিশ।  তিতাস থানার চৌকস এসআই মোঃ বিল্লাল হোসেন মোঃ কাউছার নামে ঐ ডাকাতকে আটক করতে সক্ষম হন। এই দিকে আটক ডাকাত শরীফ (৩০) কে গতকাল কোর্টে চালান করা হয়েছে।  নারান্দিয়া ইউনিয়ন ফ্রেন্ডস ক্লাবের সভাপতি আল আমিন মাসুমের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় তার বাবা মিজানুর রহমান বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে।  তিতাস থানার মামলা নং ১৮,  তারিখ ১৬/০৩/২০২১ ইং। মামলায় অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জনসহ মোট আসামি করা হয়েছে ৮ জনকে।তারা হলো,  তিতাস উপজেলার জগতপুর ইউনিয়নের রায়পুর গ্রামের মৃত খোরশেদ মিয়ার ছেলে শরীফ সরকার (৩৪),  দাউদকান্দি উপজেলার লক্ষীপুর গ্রামের বাচ্চু মিয়ার ছেলে কাউছার মিয়া, চারপাড়া গ্রামের আবুল হাসেমের ছেলে তাহের মিয়া (৪৫),  উত্তরনগরের মৃত মমতাজ উদ্দিনের ছেলে কুদ্দুস মিয়া (৪০),  চান্দিনা উপজেলার রফিক মিয়া (৩২),  ভবেরচরের রহিম,  দাউদকান্দি নুরপুরের আবুল কালাম (৩৫),  কালাইগোবিন্দপুরোর মাসুম (২৫)।    তিতাস থানার এসআই মোঃ বিল্লাল হোসেন বলেন,  অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ২ নং আসামী কাউছারকে ১৮ মার্চ কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।                                        
উল্লেখ্য গত ১৫ মার্চ দিবাগত রাত ২.৩০ টার দিকে নারান্দিয়া ইউনিয়ন ফ্রেন্ডস ক্লাবের সভাপতি আল আমিন মাসুমের বাসায় ডাকাতি করতে গেলে শরীফ সরকার নামে একজনকে আটক করে তিতাস থানায়  সোপর্দ করে।  ৭-৮ জনের ডাকাত দলের অন্যরা পালিয়ে যায়। আটককৃত ডাকাত শরীফ তিতাস উপজেলার জগতপুর ইউনিয়নের কৈয়ারপাড় রায়পুর গ্রামের বাসিন্দা।  তার বাবার নাম মৃত খুরশিদ মিয়া। সে এলাকার একজন চিহ্নিত ডাকাত।        শরিফ পূর্বেও তিতাস উপজেলার আসমানিয়ায় ডাকাতি করতে গিয়ে ধরা খেয়েছিল।