চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ লাগাতার আন্দোলনের অংশ হিসাবে আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১১ টার সময় মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের অফিসের সামনে অবস্থান ধর্মঘট, মানববন্ধন এবং বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড ও মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম । তাদের অভিযোগ ২০১৯-২০২০ মাড়ায় মৌসুমে নিয়োগকৃত মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা কেরু চিনিকলে চলতি মাড়াই মৌসুম উদ্বোধনের দিন ১৮/১২/২০২০ কাজে যোগদান করতে গেলে চিনিকলের ব্যাবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ তাদের কাজে যোগদান হতে বিরত রাখেন।

এ বিষয়ে কেরু চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু সাঈদ বলেন, আমরা উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবো। পরে যোগদান বঞ্চিত মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা একত্রিত হয়ে আন্দোলনের ঘোষনা দেন এবং যতদিন পর্যন্ত মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের কাজে যোগদান করতে দেওয়া না হবে এবং কেরু চিনিকলে সকল নিয়োগের ক্ষেত্রে ৩০% কোটা সংরক্ষন করা না হবে ততদিন তারা রাজ পথে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

বিক্ষোভ মিছিল শেষে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের কেন্দ্রিয় নেতা সাংবাদিক ইয়াছির আরাফাত মিলনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, চুয়াডাঙ্গা জেলার সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবু হোসেন, দামুড়হুদা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাই কমিটির সভাপতি রুস্তম আলী, সাবেক ডেপুটি কমান্ডার নাসির উদ্দীন, দামুড়হুদা উপজেলার সাবেক কমান্ডার বিল্লাল উদ্দীন, সাবেক জেলা ইউনিট কমান্ডার তানজির আহমেদ ,বীর মুক্তিযোদ্ধা আ.সবুর , বীর মুক্তিযোদ্ধা আ.খালেক,সাবেক জেলা সাংগাঠনিক কমান্ডার সিরাজুল ইসলাম ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের মো.ইকবাল হোসেন, নাজিম উদ্দীন, রবিউল ইসলাম।