আরিফা আলম সোনিয়া

আমি আগের যুগের কোন দাসীর কথা বলছি না।এই একবিংশ শতাব্দীতে ই অনেক দাসী আছি।কাজের মেয়ে/গৃহকর্মীর কথা বলছি?? না না তাও না বরং তারা তো তাদের চাইতে ভালোই আছে।

This image has an empty alt attribute; its file name is romanticism_1.jpg
Artist: Henry Fuseli

একজন গৃহকর্মী বাসায় রাখবেন সবসময়ের জন্য এখন পাঁচ হাজারের নীচে পাবেন না।তারপর তার খাওয়া,কাপড়,ওষুধ সব আপনাকেই বহন করতে হবে।সাথে তাকে বিশ্রাম,টিভি দেখার সময় দিতে হবে।তার নিজ বাড়ি যাবার জন্য কয়মাস পর পর ছুটি ও দিতে হবে।তাকে আপনি গালমন্দ করলে,সে ছেড়ে চলে যাবে সেই ভয়ও আপনার থাকবে।
কিন্তু একটি মেয়ে যখন বিয়ে হয় অন্যের সংসার করতে যায়।তখন সে দাসী তে রুপান্তরিত হয়।হুম ছেলে অনেক উন্নত লেখাপড়া, ফ্যামিলি ভালো। পড়া লেখা করাচ্ছে মেয়েকে, জব করতে দিবে বা করছে।তবুও কোন না কোন দিক দিয়ে সে পরাধীনতা ভোগ করে।কাপড় জামাইয়ের পচ্ছন্দে পড়তে হবে।কালার পচ্ছন্দ হলোনা বাদ।আর আমরা মেয়েরাও তার পচ্ছন্দই নিজের পচ্ছন্দ করে নেই।লেখাপড়া করবেন, সাবজেক্ট পচ্ছন্দ না। কোন না কোন ভাবে বুঝানো হবে সেই সাবজেক্ট যেই সাবজেক্ট আপনার পচ্ছন্দ সেটা ভালো না।কাজ ঘরের খুটিনাটি করতে হবে।কোনটা সমস্যা কথাও শুনতে হবে।এতো কষ্ট করে বাচ্চা জন্ম দিবেন,,, কোন সমস্যা, কোন ত্রুটি সব ভুল আপনার।বাচ্চা জন্মের পর অনেকে হয়তো মেয়েটার শারিরীক খেয়াল রাখে কিন্তু মানসিক,, এ দেশে কয় জন যত্ন করেন??

বাচ্চার শরীর খারাপ মেয়েটার দোষ। বাচ্চা কথা বলতে দেরী হচ্ছে তার দোষ। মারধর, গালমন্দ সবই তার উপর করা যায়। বউ তো,,,,

টাকা বার বার ভিক্ষার মতো চাইতে হবে।কৈফিয়ত দিতে হবে।যেন অপরাধ হবে সে টাকা দিয়ে।কোথাও জমাবেন টাকা,,,শ্বশুর বাড়ির বিপদ,হাজব্যান্ডের ব্যবসা যে কোন কাজে হঠাৎ তারা নিয়ে নিবে।ফেরত,,,,জীবনে ও আসবে না।কোথাও যাওয়া আসার অনুমতি তো নিতেই হবে।এমন কি মায়ের বাসায় যাওয়ার অনুমতি টুকুও না পেতে পারেন।অনেকে পায় না বা অনেক ভোগান্তির স্বীকার হতে হয়।

চাকরি করেন,,,,স্বাধীনতায় ই তো আছে।হুম তাই তো,,,বলা হয় কি চাকরি করো,,এ টাকায় কি সংসার চলে??? আবার এবার একটু তুমি চালিয়ে নাও।রোজগার তো সংসারের জন্যই করো।মাঝে মাঝে সেই মেয়ের ঘরে গৃহকর্মীর চাইতেও অধিকার ক্ষুন্ন মনে হয়।
এমন হাজারো কথা আছে।একেক মেয়ের একেক সমস্যা, কথা থাকবে।সব কিছু জায়েজ আছে স্ত্রী বা বউয়ের উপর করার।কিন্তু তারা প্রতিবাদ করতে গেলে এ সমাজ তাদেরই হেনস্ত করবে।

এখানে এখনো মানা হয়,বিয়ে হলেই শেষ। মোটা কাপড়, মোটা ভাত হলেই হয়।টাকা পয়সা,ভাত, কাপড় এখানে মুখ্য।স্বাধীনতা আবার কি!!!
প্রত্যেকটি ঘরেই প্রত্যেক টি মেয়ের ই কোন না কোন ভাবে কখনো কোন সময় স্বাধীনতা ক্ষুন্ন হয়।

প্রত্যেক ঘরেই দাসী বাস করে।


নোট : হিমুর স্বপ্ন বুনন ফেসবুজ পেজ থেকে লেখকের অনুমতি সাপেক্ষে প্রকাশিত।

This image has an empty alt attribute; its file name is Arifa-Alam-Soniya-1.jpg
লেখক : আরিফা আলম সোনিয়া