হাফেজ নূরুল্লাহঃ ভোলা জেলা দূলারহাট মহিলা দাখিল মাদ্রাসার সুপার আলহাজ্ব মাওঃ আবুল কালাম আজাদ কিছু দিন পূর্বে পিত্ত থলিতে পাথর হয়ে গুরুতর অসুস্থ হয়ে ঢাকা ইবনেসিনা ম্যাডিকেলের ডাক্তারের শরনাপন্ন হন। হাসপাতালে ডাক্তার তাঁকে জরুরি অপারেশন করার পরামর্শ দিলে গত সাপ্তাহে তাঁকে অপারেশন করে ৭ দিন পর্যন্ত অন্যের সহযোগিতায় পরিচর্যা নিয়ে চলার পরামর্শ সহ ৭ দিন পর আবার ডাক্তারের সাথে সাক্ষাৎ করতে বলায় তিনি বর্তমানে ঢাকা গাবতলীর মোহাম্মদীয়া আবাসিক হোটেলে প্রতিনিয়ত সিট ভাড়া দিয়ে ছোট ভাই মোঃ আবুল কাশেম আনছারীকে সাথে নিয়ে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে আছেন। মাওঃ আবুল কালাম আজাদের অসুস্থতার কথা শুনে তার নিজস্ব আত্মীয় স্বজন সহ এলাকার অনেক লোকই তাঁকে ওই হোটেলে দেখতে আসেন ও রোগমুক্তির জন্য দোয়া কামনা করছেন। পাশাপাশি আজ বিকেল ৫ ঘটিকার সময় তারঁ রোগ মুক্তি ও দোয়া কামনায় মানবাধিকার সংস্থা ইউনিটি ফর ইউনিভার্স হিউম্যান রাইটস অফ বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন এর আঞ্চলিক অফিসার (ঢাকা) ও রিপোর্টার হিসেবে এবং একই সাথে একই মাদ্রাসায় লেখাপড়া করছেন এবং একজন মাদ্রাসা সুপারের অসুস্থ্যতার কথা শুনে ছুটে আসেন সাংবাদিক হাফেজ মোঃ নুরউল্লাহ ও তাঁর অফিস ষ্টাফ মুক্তিযোদ্ধা ইউছুফ আলী হাওলাদার। একজন মানবাধিকার কর্মী ও সংবাদদাতা হিসেবে মাওঃ আবুল কালাম আজাদকে সঠিক পরামর্শ সহ পরিপূর্ণ সুস্থ্য হয়ে তারপর কর্মস্থলে যাওয়ার পরামর্শ সহ বিভিন্ন আলাপ আলোচনা করেন হাফেজ মোঃ নুরউল্লাহ । মাওঃ আবুল কালাম আজাদ একজন মাদ্রাসা সুপার ও দুলারহাটের একজন সম্মানিত স্থায়ী বাসিন্দা। একজন মাদ্রাসা সুপার অসুস্থ হলে প্রতিষ্ঠানের বাহিরে থাকলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নানান রকম সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে বিধায় তাঁকে যেন মহান রাব্বুল আলামিন তারাতাড়ি সুস্থ করে আবার মাদ্রাসায় সঠিক মত দায়িত্ব পালন করতে পারে তারজন্য দেশের সর্বস্তরের মানুষের কাছে দোয়া কামনা করছেন তিনি।
দোয়া কামনায় আলহাজ্ব মাওঃ মোঃ আবুল কালাম আজাদ ও তার পরিবারবর্গ সহ মানবাধিকার সংস্থা ইউনিটি ফর ইউনিভার্স হিউম্যান রাইটস অফ বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন এর আঞ্চলিক অফিসের সকল সদস্যরা।