মূল পত্রিকার নিউজ পড়তে ছবিতে ক্লিক করুন

ঝিনাইদহ অফিস : গতকাল বুধবার ঝিনাইদহ সরকারি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে সদর উপজেলার ছবেদ আলী মাধ্যমিক ৪র্থ শ্রেণির ৩ পদে ও বংকিরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ল্যাব এসিসট্যান্ট এন্ড কম্পিউটার অপারেটর পদে নিয়োগ বোর্ড বসার কথা ছিল। এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের সভাপতিরা নিয়োগ সংশ্লিষ্ট সকল কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে তড়িঘড়ি করে অনিময়ের মাধ্যমে নিয়োগ দিতে চেষ্টা করেছিলেন।

কোন কোন প্রার্থীর কাছ থেকে কত টাকা নিয়েছে বিস্তরিত তথ্য দিয়ে দৈনিক এই আমার দেশ এ সংবাদ প্রকাশিত হয়। সংবাদের শিরোনাম ছিল ‘ঝিনাইদহে ২ স্কুলের নিয়োগের টাকা খেয়ে শিক্ষা অফিসার কামরুজ্জামান রোজার মধ্যেই ব্যাঙ’। সংবাদটি ঝিনাইদহসহ সারাদেশে ব্যপক আলোড়ন সৃষ্টি করে। অবশেষ ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক খবরের সত্যতা পেয়ে সাহসী পদক্ষেপ নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে অবৈধ নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ করেন। জেলা প্রশাসক মনিরা বেগম ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম শাহীনের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন, যাছাই-বাছায়ের নামে অনিয়মের মধ্যেই আবেদন করা প্রার্থীরা ও সংশ্লিষ্ট একালার সাধারণ জনগণ। তারা দৈনিক এই আমার দেশ পত্রিকার বস্তুনিষ্ঠতার সঙ্গে সত্য সংবাদ প্রকাশের নির্ভিক ভুমিকাকেও স্বাগত জানান।

আগের দিন প্রকাশিত খবরটি পড়তে চাইলে ক্লিক করুন নিচের ছবিতে