উজ্জ্বল রায় (নিজস্ব প্রতিবেদক) নড়াইল     করোনাভাইরাস প্রতিরোধে নড়াইলবাসীর স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও মৃত্যুঝুঁকির কথা বিবেচনা করে শুক্রবার (১৫ মে) থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সব ধরণের দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। উজ্জ্বল রায় (নিজস্ব প্রতিবেদক) নড়াইল জানান,     বৃহস্পতিবার (১৪ মে) দুপুরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে এ-সংক্রান্ত গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। এ ছাড়া নড়াইল সদর, লোহাগড়া ও কালিয়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ-সংক্রান্ত মাইকিং করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে করোনাভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত জেলা কমিটির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা বলেন, নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির দোকান, কাঁচাবাজার, কৃষিপণ্য এবং ওষুধের দোকানসহ জরুরি পরিসেবা ব্যতীত সব ধরণের দোকানপাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। শুক্রবার (১৫ মে) সকাল থেকে এ নির্দেশ কার্যকর হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত এ নিয়ম সবাইকে মেনে চলতে হবে।
গণবিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, পবিত্র রমজান ও ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবং সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করে সরকার প্রদত্ত শর্তসমূহ পালন সাক্ষেপে দোকানপাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও অন্যান্য বাজার খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। কিন্তু গত চারদিন মার্কেট ও শপিংমলসমূহে সরেজমিন পরিদর্শনে প্রতীয়মান হয়েছে, মার্কেট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আগত ক্রেতা-বিক্রেতা সরকার প্রদত্ত শর্তসমূহের নূন্যতম ৯০ ভাগ মেনে চলার বিষয়ে সম্পূর্ণ অবহেলা করেছেন।
এ পরিস্থিতিতে নড়াইলবাসীর স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও মৃত্যুঝুঁকির কথা বিবেচনা করে জেলার সবমহলের অনুরোধক্রমে করোনাভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত জেলা কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে ১৫ মে শুক্রবার থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সব ধরণের দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হলো। প্রসঙ্গত, গত ১০ থেকে ১৪ মে নড়াইলে শপিংমলসহ সব ধরণের দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চালু করা হলেও বেশির ভাগ ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলেননি জনসাধারণ।