হারুনুর রশিদ, নরসিংদী প্রতিনিধি: নরসিংদী পৌরসভার মোট ৪০ টি এবং মাধবদী পৌরসভায় রয়েছেন ১৫ টি ভোট কেন্দ্র। নরসিংদী পৌরসভার ভোট কক্ষ সংখ্যা ২৭৮ টি এবং মাধবদীর পৌরসভার ভোট কক্ষ সংখ্যা ১০২ টি। মোট কেন্দ্র সংখ্যা ৫৫ টি। সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ চলবে।

নরসিংদী পৌরসভায় মেয়র পদে ৪ জন, কাউন্সিলর ৪৩ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। মেয়র পদে লড়াই হবে ত্রিমুখী।

নরসিংদী ও মাধবদী পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদপ্রার্থীরা

মাধবদী পৌরসভার মেয়র পদে চারজন, কাউন্সিলর পদপ্রার্থী ৩৫ জন, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদপ্রার্থী ১১ জন প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

প্রশাসনিক দায়িত্বে ১৮ জন নির্বাহী ও একজন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট। ১২টি গাড়ী নিয়ে ৭২ জন র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) সদস্য ১৫০ জন বিজিবি (বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ) সদস্য টহল দিচ্ছেন। প্রতি কেন্দ্রে বাংলাদেশ পুলিশের ৭ জন সদস্য । দুটি ভোট কেন্দ্রে পুলিশের একটি মোবাইল টিম  কাজ করছে। প্রতি ৪ থেকে ৫টি কেন্দ্র নিয়ে পুলিশের উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন একটি স্ট্রাইকিং ফোর্স কাজ করছে। প্রতি কেন্দ্রে ৯ জন বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্য নিয়জিত রয়েছে । ভোটগ্রহণ শুরু রোববার সকালে ব্যালট পেপারে শুুরু হয়েছে । নরসিংদী পৌরসভায় ভোটার রয়েছে ৯৯ হাজার ৪৫৪ জন। পুরুষ ভোটার- ৪৯১৫৭ জন, মহিলা ভোটার – ৫০২৫৭ জন। মাধবদী পৌরসভার মোট ভোটার ৩২ হাজার ৪৮৩ জন।পরুষ ভোটার – ১৭১৬৫ জন। মহিলা ভোটার ১৫৩১৮ জন।

নির্বাচন আয়োজনের যে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় রয়েছে, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রভূত দায়িত্ব রয়েছে। নির্বাচন-পূর্ববর্তী, নির্বাচনকালীন এবং নির্বাচন-পরবর্তী সময়ে আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ না করলে নির্বাচন করা যাবে না। নির্বাচনের দিন প্রতিটি কেন্দ্রে প্রয়োজন তাদের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে।  আবশ্যকতা রয়েছে ভ্রাম্যমাণ টহল দল (মোবাইল টিম) এবং গোলযোগ বাধলে সেখানে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার মতো দলের (স্ট্রাইকিং ফোর্স)। এই আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থায় কেন্দ্রবিন্দুতে থাকছেন পুলিশ। পুলিশের সহায়তায় আবশ্যক হয় আনসার। র‍্যাব, বিজিবিও এ ব্যবস্থায় মোবাইল টিম বা স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে ।