এম হাসান মুসা, শৈলকুপা (ঝিনাইদ) প্রতিনিধি : ঝিনাইদহের শৈলকুপায় সম্পত্তি নিয়ে আপন ভাই ও ভাতিজাদের অত্যাচারে এক মুক্তিযোদ্ধার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। সম্প্রতি ভাই ও ভাতিজারা এই মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের লোকজনকে লাি ত এবং বাড়িঘর ও সীমানার বেড়া ভাঙচুর করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। রাতে বাড়ির আশ-পাশে অস্ত্র নিয়ে ঘোরাফেরা ও বিভিন্ন আক্রমনাত্মক কথা বার্তা বলে হুমকি দেয়ারও অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে মুক্তিযোদ্ধার পরিবারটি চরম আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে।

জানা যায়, উপজেলার ১০ নং বগুড়া ইউনিয়নের কাজী নৌপাড়া গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা তফসের আলী শেখ(৭৫) এর সাথে তার আপন ভাই তক্কেল আলী শেখের জমিজমা নিয়ে বিরোধ আছে। গত ১৫ই সেপ্টেম্বর সকালে তার বাড়ির সামনে ভাই তক্কেল ও ভাতিজা সোহেল ও রয়েল এবং জাহিদ শেখ , ফরিদুল শেখ,জাহাঙ্গীর, লালচাদ কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তার নিকট আত্বীয়া নিলুফা ইয়াসমিনকে মারপিট করে আহত করে। বর্তমান তিনি হাসপাতালে ভর্তি আছে। এ ব্যাপারে তিনি শৈলকুপা থানায় একটি জিডি দায়ের করেছেন।
বীর মুক্তিযোদ্ধা তপসের শেখের ছেলে পুলিশ সদস্য নাসির উদ্দিন বলেন, আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় আছি। আমাদের জায়গা জমির সুষ্ঠু সমাধান চাইলেও আমাদের চাচা-চাচাতো ভাইয়েরা চান না। এজন্য তারা কোন সালিশও মানেন না। মাঝে মাঝেই বিভিন্ন ভাবে আমার মা-বাবা সহ পরিবারের সদস্যদের হুমকি ধামকি প্রদর্শন করে। বিভিন্ন সময় আমি ছুটিতে বাড়ি আসলে আমার প্রাণনাশের হুমকি দেয়।

গত ৯ ই অক্টোবর উপজেলা আওয়ামী লীগের অফিসে একটি শালিস ডাকা হয় । বৈঠকে উভয় পক্ষ হাজির হলে বিশেষ কারনে ১১ই অক্টোবর শালিশের দিন পুন:ধায্য করা হয়।পার্টি অফিস থেকে বের হবার সাথে সাথেই আমার চাচা ও চাচাতো ভাই সহ ১০/১২ জন কিল ঘুষি ও লাঠিসোটা দিয়ে আমাকে আক্রমণ করে আহত করে । পরে বাড়ি ফিরে আসলে সেখানেও তারা বাড়িতে চড়াও হয়।

বীর মুক্তিযোদ্ধা তফসের আলী বলেন, জমিজমা নিয়ে ভাইদের সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। আমি এর সুষ্ঠু সমাধান চাই। মাঝে মধ্যেই ভাইপোরা জোর জুলুম করে আমার বাড়ির পাশে এসে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে থাকে। আমি ও আমার পুত্র থানায় পৃথক দুটি ঘটনায় ঁিজডি ও অভিযোগ দায়ের করেছি। আমি বর্তমান চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।
এব্যাপারে রয়েল শেখ বলেন, আমার চাচার সাথে আমাদের কোন বিরোধ নেই। চাচা আমাদের কেনা জমি রেজিস্ট্রি করে দেয় না বিধায় কিছুটা মনোমালিন্যের সৃষ্টি হয়েছিল। আমরা কাউকে মারধর করিনি।
এ ব্যাপারে শৈলকুপার হাটফাজিলপুর ক্যাম্প ইন-চার্জ এস আই তৌফিক আনাম বলেন, এব্যাপারে আমরা একটি অভিযোগ পেয়েছি। আগামীকাল উভয়পক্ষকে নিয়ে বসাবসি আছে। আমরা বিষয়টি নিয়ে মীমাংসার চেষ্টা করছি।