মনিরুজ্জামান লেবু, নীলফামারী প্রতিনিধিঃ  নীলফামারী সৈয়দপুর সড়কে ইপিজেড’র শ্রমিক বহনকারী অটোবাইকের সাথে কোচের মুখোমুখি সংঘর্ষে একজন নিহত ও ১১জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহত তিনজনকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও আটজনকে নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

আজ শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা একটি নৈশ কোচের সাথে কামারপাড়া এলাকায় ইপিজেড’র শ্রমিক বহনকারী অটোবাইকের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে গুরুতর আহতদের মধ্যে হাসপাতালে নেয়ার পথে সনিক কোম্পানীর শ্রমিক মশিউর রহমান মারা যায়। তিনি সদরের কানিয়ালখাতা গ্রামের আব্দুস সাত্তারের ছেলে।

গুরুতর আহত শ্রমিক বেবী আখতার, শাহিনা আখতার ও ইলিয়াস আলীকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে অপর আট শ্রমিককে। নীলফামারী থানার উপ-পরিদর্শক পরিতোষ চন্দ্র রায় জানান, দুর্ঘটনায় অটোবাইকটি দুমরে মুচরে গেছে। আহতদের ফায়ার সার্ভিসের সহায়তায় তাদের উদ্ধার করে নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পরবর্তীতে দুর্ঘটনা ঘটনো বাসের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালের আবাশিক মেডিকেল অফিসার ডা. অমল রায় বলেন, আহতদের মধ্যে হাসপাতালে আনার পথে মশিউর রহমান (৪০) মারা গেছেন। গুরুতর আহত তিনজনকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। অপর আটজনকে নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।