মেহেদী হাসান, পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধিঃ বরগুনার পাথরঘাটায় হাত-পা শিকলে বাঁধা নজরুল মোল্লা নামে এক যুবককে উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে স্থানীয় মানুষের সহযোগিতায় পুলিশ ওই যুবককে উদ্ধার করে। এ সময় ওই যুবক অচেতন ছিলেন।

নজরুল মোল্লা (৩২) বরগুনার পাথরঘাটা সদর ইউনিয়নের চরলাঠিমারা গ্রামের আবুল কালাম মোল্লার ছেলে।

ওই যুবকের বড় ভাই সোহাগ মোল্লা বলেন, আমার ছোট ভাই নজরুল মোল্লা কাকচিড়া থেকে বিকাশের ক্যাশ আউট করে ২ লাখ টাকা ও তার সঙ্গে থাকা আরও ৫০ হাজারসহ আড়াই লাখ টাকা নিয়ে রাত ১০টার দিকে আসতে ছিল। এ সময় কাকচিড়া-পাথরঘাটা সড়কের সোনালী মাদ্রাসা সংলগ্ন এলাকা থেকে দুইটি মোটরসাইকেলে থাকা ৬ ব্যক্তি তাকে পথে গতিরোধ করে শিকল দিয়ে হাত ও পা বেঁধে তালা মেরে দেয়। এরমধ্যে তাকে অচেতন করে ফেলে। পরবর্তীতে স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য মতিউর রহমানের বাড়ি সংলগ্ন এলাকার সড়কের পাশে নজরুল মোল্লাকে পানির মধ্যে অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায়। এসময় নজরুল মোল্লার মোটরসাইকেলটিও পাশে পড়ে রয়েছে। পরে স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য মতিউর রহমানসহ এলাকাবাসীকে সঙ্গে নিয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে পাথরঘাটা হাসপাতালে ভর্তি করেন।

প্রত্যক্ষদর্শী কালমেঘা ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য মতিউর রহমান বলেন, সড়কের পাশে পানির মধ্যে একটি লাশ ভেবে আমরা প্রথমে পুলিশকে খবর দেয় পরে পুলিশের পরামর্শে আমরা ওই লাশের পাশে গিয়ে ভালোভাবে দেখার চেষ্টা করলে দেখা যায় ওই ব্যক্তি জীবিত আছেন। এরমধ্যে পুলিশ এসে উপস্থিতিতে শিকল কেটে তাকে হাসপাতালে নেয়ার ব্যবস্থা করা হয়।

এ ব্যাপারে পাথরঘাটা থানা উপ-পরিদর্শক (এসআই) রাজেত আলী বলেন, স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে শিকলে বাঁধা তালা ভেঙে নজরুল মোল্লাকে উদ্ধার করা হয়। পরবর্তীতে স্থানীয়দের সহযোগিতায় দ্রুত তাকে পাথরঘাটা হাসপাতলে ভর্তি করা হয়। তার চেতনা ফিরে আসলে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।