মনোয়ার বাবু, (ঘোড়াঘাট) দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে পারিবারিক কলহের কারণে স্ত্রী কে পিটিয়ে হত্যা করেছে পাষণ্ড স্বামী।নিহত গৃহবধূর নাম আদূরী(২১) বলে জানা গেছে।নিহত গৃহবধূ গাইবান্ধা, গোবিন্দগঞ্জ, বাগদা কাঁটাবাড়ি ইউনিয়ের দঃআশকুরের মোঃ শহিদুল ইসলামের মেয়ে।

ঘটনায় জড়িত থাকায় আটক করা হয়েছে উপজেলার ৩ নং সিংড়া ইউপির ৯ নং ওয়ার্ডের  শীতল গ্রামের শাহাদুল ইসলামের ছেলে ঘাতক স্বামী আতীয়ার রহমান( ২৪) কে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ১৫ মার্চ (সোমবার) মধ্য রাতে  জরুরি সেবা ৯৯৯ এর মাধ্যমে জানতে পেরে ঘটনাস্থলে পৌছে ঝুলন্ত অবস্থায় নিহত গৃহ বধূর লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশ। জৈনিক এক ব্যক্তির মাধ্যমে পুলিশ জানতে পারে যে, নিহত গৃহ বধূকে মারপিট করার এপর্যায়ে মারা গেলে,তাকে ফাঁস দিয়ে ঝুলিয়ে রেখে পালানোর চেষ্টা করে ঘাতক স্বামী।পুলিশ সেই রাতেই মরদেহ উদ্ধার করে এবং  অভিযান চালিয়ে ঘাতক স্বামীকে কে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

অন্যদিকে নিহত গৃহবধূর পিতা শহিদুল ইসলাম জানান,প্রায় ৪ বছর পূর্বে তার মেয়ে কে বিয়ে দিয়েছিলেন ঘাতক স্বামী আতিয়ারের সাথে। সেই সময় থেকেই তার মেয়ের উপর কারণে অকারণে নির্যাতন করত শ্বশুর বাড়ির লোকজন।অন্য দিনের মত সেই দিনও ঘাতক স্বামীর খালাতো ভাইয়ের বিয়েতে যাওয়া না যাওয়া নিয়ে তর্কের এক পর্যায়ে অমানুষিক শারীরিক নির্যাতন করে মেরে ফেলে বলে জানান।কান্না জড়িত কন্ঠে তিনি আরও জানান, শত নির্যাতন সহ্য করেও সংসার টিকানোর জন্য মূখ খুলত না আমার মেয়ে কিন্তু তারা আজ চিরদিনের মত আমার মেয়ের মূখ বন্ধ করে দিল।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ঘোড়াঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজিম উদ্দিন বলেন, মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য আজ দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়েরের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আমরা তদন্তের কাজ শুরু করেছি। এ ঘটনায় আরো কেও জড়িত আছে কিনা! তা আমরা খতিয়ে দেখছি। তদন্তে অন্য কারো সংশ্লিষ্ঠতা খুঁজে পেলে তাকেও দ্রুত সময়ে আইনের আওতায় আনা হবে।