হরিণাকুণ্ডু (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি

পত্রিকার পাতায় পড়তে ছবিতে ক্লিক করুন

ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে এক বিএনপি নেতার কুরুচিপূর্ণ বক্তব্যকে কেন্দ্র করে ফুঁসে উঠছে আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। ঘটনার চারদিনেও ওই বিএনপি নেতা গ্রেফতার না হওয়ায় ক্রমেই ক্ষোভ বাড়ছে সরকার দলীয় বিভিন্ন সংগঠনের মধ্যে। এ ঘটনায় বিএনপি নেতা আব্দুল মমিনসহ তিনজনকে আসামি করে রোববার রাতে থানায় মামলার আবেদন করেছেন স্থানীয় ছাত্রলীগের এক নেতা।

অভিযোগ ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক থেকে জানা যায়, গত ২৫ মার্চ উপজেলার ভায়না ইউনিয়নের বাঁকচুয়া গ্রামে বিএনপির এক সমাবেশে বক্তব্য দেন উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মমিন। তিনি বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘**ন’ দিয়ে বিদায় করতে দলীয় নেতাকর্মিদের আহবান জানান। বক্তব্যটি স্থানীয় বিএনপির এক কর্মী ফেসবুকে লাইভ করলে সেটি ভাইরাল হয়। পরে ফেসবুকের বিভিন্ন আইডিতে ওই বিএনপি নেতাকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়ে ভিডিওটি শেয়ার করা হয়।

মামলার বাদি ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক রুবেল রানা বলেন, দেশের একজন প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে এমন কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য মোটেও শোভনীয় নয়। ঔদ্ধত্যপূর্ণ ওই বক্তব্যের পরও অভিযুক্ত বিএনপি নেতারা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ানোই ক্ষোভ জানান ছাত্রলীগের এই নেতা। তার দাবি ২৬মার্চ রাতে ওই বিএনপি নেতাকে গ্রেফতারের পরেও ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রবিউল ইসলাম বলেন, সরকার প্রধানকে নিয়ে এমন বক্তব্য চরম ধৃষ্টতা। এবং এটি দেশের জন্যও এক অসনি সংকেত। আমরা দ্রুত তাকে গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি।

জেলা আ‘লীগের উপদপ্তর সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসাইন বলেন, শান্ত এই উপজেলাকে অশান্ত করতে এমন কটুক্তি করা হয়েছে। একজন সরকার প্রধানের বিরুদ্ধে কটুক্তি মানে দেশের বিরুদ্ধে কটুক্তি। এটি কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। তিনি দ্রুত ওই বিএনপি নেতাকে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান।

এ বিষয়ে ওসি আব্দুর রহিম মোল্লা বলেন, একটি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। তাদের নির্দেশনায় আমরা কাজ করছি। তদন্ত করে এ বিষয়ে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।