সাভার – আশুলিয়া প্রতিনিধি।

আশুলিয়া থানা যুবলীগের দুই উজ্জ্বল নক্ষত্র তাদের প্রতিশ্রুতি, ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার মদদদাতা ও মাষ্টার মাইন্ড যারা ছিলো, সেই সকল ষড়যন্ত্রকারীদের মুখোশ উন্মোচন করা হবে বলে জানিয়েছেন আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহবায়ক কবির হোসেন সরকার ও যুগ্ন আহবায়ক মইনুল ইসলাম ভূঁইয়া, তাদের নেতৃত্বে আশুলিয়া থানা যুবলীগ বিগত দিনের চেয়ে অনেক সুসংগঠিত ও শক্তিশালী ।

১৫ আগস্টে সুপরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে জাতিকে ধ্বংস করার একটি নীল নকশা করেছিল উল্লেখ করে মইনুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, আমরা মুক্তিযুদ্ধের ঘাতকদের বিচার করেছেন, ঠিক সেভাবেই এর পিছনে যেসব ঘাতকরা আছে তাদেরও বিচার করা হবে।

‘১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের মাস্টারমাইন্ড কারা ছিলেন তখন কারা দেশের ক্ষমতায় ছিল? পাকিস্তানিদের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করে খুনিদের পুরস্কৃত করেছেন , দূতাবাসে চাকরি দেওয়া, তাদের পুনর্বাসন করেছিল। আজকে তো এসব ষড়যন্ত্রকারীদের মুখোশ উম্মোচন করা যাচ্ছে।’

আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহবায়ক কবির হোসেন সরকার বলেন, ১৫ আগস্ট ও ২১ আগস্ট হামলা একই সূত্রে গাঁথা। এর মাস্টার মাইন্ড ছিলেন বিএনপি ও জামাত শিবির আর ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার মাস্টার মাইন্ড ছিলেন খালেদা জিয়া ও তার ছেলে তারেক জিয়া। বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদ তার ফাঁসির রায় কার্যকর হওয়ার আগে বলে গেছেন, ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন জিয়াউর রহমান। তাই আশুলিয়া থানা যুবলীগের দাবি- যারা বঙ্গবন্ধুর পরিবারকে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে তাদেরকে বাংলার মাটিতে শাস্তি পেতেই হবে ।
মইনুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন,আশুলিয়া থানা যুবলীগ আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক। বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে আশুলিয়া থানা যুবলীগ সব সময় পাশে আছে এবং থাকবে যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য প্রস্তুত।