নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
বাংলাদেশের অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতি’র ভবিষ্যদ্বাণীই সত্যি হলো। নারী বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে লড়াকু জয় পেয়েছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। এই জয়ের ফলে বিশ্বকাপের কোনাে ম্যাচে টাইগ্রেসদের এটিই প্রথম জয়। এর আগে বিশ্বকাপের অন্য ম্যাচগুলোতে ভালো খেলেও জয়ের দেখা পায়নি বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। পাকিস্তানের বিপক্ষে ৯ রানের জয় দিয়ে বিশ্বকাপে জয়ের অভিষেক হলো তাদের।

হ্যামিল্টনের সেডন পার্কে আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৩৪ রান করেছিল বাংলাদেশ। জবাবে ২২৫ রানের বেশি করতে পারেনি পাকিস্তান নারী দল। প্রথমবারের মতো ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলতে গিয়ে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচেই প্রথম জয় পেয়ে গেলো বাংলাদেশ নারী দল। অন্যদিকে ওয়ানডে বিশ্বকাপে এ নিয়ে টানা ১৮ ম্যাচ হারলো পাকিস্তান। সবশেষ ২০০৯ সালে বিশ্বকাপে জয়ের মুখ দেখেছিল তারা।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে আগের দু ম্যাচের মতো ভালো শুরু এনে দেন বাংলাদেশের দুই ওপেনার শামিমা সুলতানা ও শারমিন আক্তার। এই জুটিতে আসে ৩৭ রান। ৩০ বলে ১৭ রান করে শামিমা আউট হলে এই জুটি ভাঙে। দারুণ খেলতে থাকা আরেক ওপেনার শারমিন ফিফটির কাছে গিয়েও ব্যর্থ হন। ৬ চারে ৫৫ বলে ৪৪ রান করে ওমাইমা সোহেলীর বলে সাজঘরে ফেরত যান তিনি। একই দশা হয় অধিনায়ক নিগার সুলতানারও।

৬৪ বলে ৪৬ রান করে তিনি ফিরলে ভেঙে যায় ফারজানার সঙ্গে ৯৭ রানের জুটি। মাঝে অন্য ব্যাটারদের আসা-যাওয়া থাকলেও বাংলাদেশের সংগ্রহটাকে বড় করতে থাকেন ফারজানা। ৪৭তম ওভারে আউট হওয়ার আগে ৫ চারে ১১৫ বলে ৭১ রান করেন তিনি। শেষদিকে ১১ বলে ১০ রান করেন অভিজ্ঞ ব্যাটার সালমা খাতুন। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ৫০ ওভার ব্যাট করে ২৩৪ রান করে বাংলাদেশ। পাকিস্তানের পক্ষে ১০ ওভারে ৪১ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন নাসরা সান্ধু।