রাজশাহী ব্যুরোঃ রাজশাহীতে ‘ধর্ষণ ও যেন নিপীড়ন মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ’ ‘আসুন এ অপরাধের বিরুদ্ধে রূখে দাঁড়াই’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ২৫ নভেম্বর থেকে ১০ ডিসেম্বর পর্যন্ত আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বিশ মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত। সোমবার সকাল ১০ টার দিকে নগরীর আলুপট্টি মোড়স্থ মুক্তিযুদ্ধ পাঠাগারে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজশাহী জেলা শাখার উদ্যোগে এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সম্মেলনে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ জেলা শাখার সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কল্পনা রায়ের সভাপতিত্বে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজশাহী জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অঞ্চনা সরকার।

অঞ্চনা সরকার বলেন, স্থানীয় পত্রিকার তথ্য অনুযায়ী ২০১৮ সালে রাজশাহীতে ৩৯৯ জন ও ২০১৯ সালে ২৪৯ জন নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনার প্রেক্ষিতে ধর্ষণকারীকে পারিবারিক ও সামাজিকভাবে বয়কট, গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার অন্যতম বড় বাধা নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধ, নারীর অধিকার মানবাধিকার, নারীর প্রতি সহিংসতা মানবাধিকার লঙ্ঘন, নারী ও কন্যা শিশু নির্যাতনকারীদের রাজনৈতিক, সামাজিক ও প্রশাসনিক আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয়া বন্ধ, পিতৃতান্ত্রিক সংস্কৃতি ও মূল্যবোধ যা নারী নির্যাতনের সংস্কৃতিকে সমর্থন করে তা প্রতিরোধ ও নিরোধের লক্ষ্যে জাতীয় নীতি ও কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ, আন্তর্জাতিক সিডও সনদের অনুচ্ছেদ-২ ও ১৬(১) (গ) এর উপর থেকে সংরক্ষণ প্রত্যাহার করে পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন, মামলার সাক্ষীদের নিরাপ্ততার লক্ষ্যে পদক্ষেপ গ্রহণ, নির্যাতনের শিকার নারীর ডিএনএ টেস্টের ব্যয় রাষ্ট্রক বহন, নারী নির্যাতন প্রতিরোধে বাংলাদেশে চলমান যে সকল আইন রয়েছে তা সুষ্ঠুভাবে প্রয়োগ এবং বিবাহ, বিবাহ-বিচ্ছেদ, সন্তানের অভিভাবকত্ব ও সম্পদ-সম্পত্তিতে নারী পুরুষের সমাধিকার ও অভিন্ন পারিবারিক আইন চালুর আহ্বান জানান তিনি।

অনুষ্ঠান পরিচালনায় ছিলেন, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ জেলা শাখার প্রচার সম্পাদক আফরোজা খান হেলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, লিগ্যাল এইড সম্পাদক শিখা রায়, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ জেলা শাখার সদস্য নুরুন্নাহার পারভীন রিতা ও প্রশিক্ষণ সম্পাদক সেলিনা বানু প্রমুখ