অনলাইন ডেস্ক : কথায় আছে, যেমন কুকুর তেমন মুগুর! ২০১৬ টি২০ বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়েছিল ভারতে। সেবার বিশ্বকাপ আয়োজনের বিনিময়ে ট্যাক্স চেয়ে বসে ভারত সরকার। নানা গড়িমসি শেষে ট্যাক্স দিতে বাধ্যও হয়। পরে আইসিসির অফিসিয়াল ব্রডকাস্টার স্টার টিভি সেই ট্যাক্সের অর্থ কেটে বাকি অর্থ আইসিসিকে পরিশোধ করে। এবার সেই অর্থই উদ্ধারে নামল ক্রিকেটের সর্বোচ্চ এই সংস্থা।

ক্ষতিপূরণের আশায় আইসিসির কাছে ভারতের বিপক্ষে মামলা করেছিল পাকিস্তান। শুরুতে মামলার রায় ভারতের পক্ষে দেয় আইসিসি। এখন সেই ভারতীয় ক্রিকেটে বোর্ডের (বিসিসিআই) কাছে ক্ষতিপূরণ চেয়ে বসেছে। এখানেই শেষ নয়, রীতিমতো আলটিমেটাম দিয়ে রেখেছে আইসিসি, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ক্ষতিপূরণ না পেলে ২০২৩ বিশ্বকাপ সরিয়ে নেওয়া হবে ভারত থেকে।

অঙ্কটা একেবারে কম নয়; ২৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। ভারতীয় মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ১৬০ কোটি। সম্প্রতি এক বিবৃতিতে আইসিসি জানায়, ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে এই অর্থ বিসিসিআইকে পরিশোধ করতে হবে, নতুবা ২০২৩ সালে অনুষ্ঠেয় ওয়ানডে বিশ্বকাপের আয়োজক দেশের মর্যাদা হারাবে। একই সঙ্গে ২০২১ সালে ভারত থেকে সরিয়ে নেওয়া হবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। তার পরও যদি ভারত কোনো কারণে ক্ষতিপূরণের অর্থ দিতে ব্যর্থ হয়, তাহলে এই বছর ক্ষতিপূরণের সমপরিমাণ অর্থ তাদের প্রাপ্য টাকা থেকে কেটে রাখা হবে।

এর আগে গত অক্টোবরে সিঙ্গাপুরে হয়ে যাওয়া আইসিসির বোর্ড মিটিংয়ে এই অর্থ ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য বিসিসিআই কর্তাদের জোরেশোরে জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। সে সময় তারা খুব একটা কর্ণপাত করেননি। হয়তো এতদিনে অনেকে ভুলেও গেছেন। তবে আইসিসির বর্তমান প্রেসিডেন্ট শশাঙ্ক মনোহর এত সহজে ভোলার কথা নয়। সেজন্যই বোধ হয় ভারতীয় বোর্ডকে আরেক দফা এই ক্ষতিপূরণের কথা মনে করিয়ে দিলেন।