ভূঞাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরের অলোয়া ইউনিয়নের আমুলা গ্রামে বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ আমজাদ সেনা একাডেমীতে (রেজিষ্ট্রেশনকৃত) বিএনপি ও জামাত শিবিরের সন্ত্রাসী বাহিনী হামলা চালিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ভাঙচুর করেছে। গত (৪ জুন) শুক্রবার আক্তারের নেতৃত্বে সকাল ৯ টায় এ হামলা চালানো হয়।

প্রতিষ্ঠানের পরিচালক আবু সাঈদ মিয়া জানান, আমি ২০১৫ সালে আমুলা এলাকায় শিক্ষার আলো ছড়াতে নিজের জায়গায় আমার বড় ভাই শহীদ মুক্তিযোদ্ধা আমজাদ একাডেমী নামে একটি শিক্ষালয় গড়ে তুলি। সে সময় থেকেই বিএনপি জামাতের সন্ত্রাসীরা আমার কাছে পাঁচ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিলো। চাঁদা না দেয়ায় এর আগেও কয়েক দফায় প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়েছিল। মনে করেছিলাম ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু করোনার মধ্যে প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় তারা আবার গত ৪ জুন শুক্রবার সকালে প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়ে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাংচুর এবং প্রতিষ্ঠানের ঘর, চেয়ার, টেবিল, ব্র্যা সহ যাবতীয় আসবাবপত্র ভাংচুরসহ নগদ আঠাশ হাজার পাঁচশত টাকা লুট করে নিয়ে যায়। বাঁধা দিতে গেলে আমাকে মারধর করে আহত করে।

তিনি আরো জানান, আমার ও পরিবারের লোকজনকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। বিষয়টি ভূঞাপুর থানা পুলিশকে জানালেও কোন বিচার পাইনি। বাধ্য হয়ে গত ৩০ জুন টাঙ্গাইল আদালতে ওই সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে মামলা করি। মামলার পর থেকে আমারা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। এদিকে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার জন্য আমার পরিবারের বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা ও হয়রানিমূলক মামলা দায়ের করেছে হামলাকারীরা। আমরা মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান। প্রধানমন্ত্রীর কাছে এ হামলার বিচার দাবি করছি।

এ বিষয়ে ভূঞাপুর থানার এসআই জুয়েল জানান, হামলার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি যেহেতু বিষয়টি আদালতে গড়িয়েছে আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক আমরা দায়িত্ব পালন করব।