আল-আমিন শেখ, টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি:
লকডাউন চলাকালীন অবস্থায় কাল থেকে গার্মেন্টসসহ শিল্পকারখানা খুলে দেয়ার ঘোষণা দেয়ার পর থেকে ভূঞাপুর বাসস্ট্যান্ডে ঢাকামুখী মানুষের ঢল নেমেছে।

শনিবার (৩১ জুলাই) সকাল থেকে বাসস্ট্যান্ড চত্বর থেকে খোলা ট্রাক, পিকআপ, প্রাইভেটকার, সিএনজি ও মোটরসাইকেলের পাশাপাশি বাসে গাদাগাদি করে গন্তব্যে যাচ্ছে তারা। এতে করে যাত্রীদের গুনতে হচ্ছে কয়েকগুণ বেশি ভাড়া।

বাসের সিটে বসে গেলে জন প্রতি ৪০০ টাকা এবং দাঁড়িয়ে গেলে ৩০০ টাকা। সিএনজি ও মোটরসাইকেলে প্রতি জনকে ভাড়া দিতে হচ্ছে ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা। এসব যানবাহন গুলোতে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি।

এসময় যাত্রীদের সাথে কথা বললে তারা বলেন, কাল থেকে গার্মেন্টস খোলা। কাজে যোগ না দিলে চাকরি থাকবে না। চাকরি বাঁচাতে প্রাইভেটকার, সিএনজি, মাইক্রোবাসে, মোটরসাইকেল ও বাসে কয়েকগুন বেশি ভাড়া দিতেই যেতে হচ্ছে আমাদের। তাই বাধ্য হয়ে বেশি ভাড়া দিয়েই যাচ্ছি আমরা।

এবিষয়ে ভূঞাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল ওহাব বলেন, শিল্পকারখানা খুলে দেওয়ায় আজ সকাল থেকে ঢাকামুখী মানুষের বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে বাসস্ট্যান্ড এলাকায় পুলিশ প্রশাসন তৎপর রয়েছে। যাত্রীদের স্বাস্থবিধি মানাতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।