লিটন পাঠান, মাধবপুর প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের মাধবপুরে স্বামী স্ত্রী দুজনেই দীর্ঘ দশ বছর যাবত অসুস্থ,তাই কোন কাজ করতে পারেন না সংসারে আয়ের উৎস তিনটি গরু। প্রতিদিন দশ কেজি দুধ দেয়। এই দুধ বিক্রি করে তাদের সংসার ভালই চলছিল। কিন্তু তাদের এই সুখ সহ্য হয়নি স্থানীয় সংঘবদ্ধ গরু চোর চক্রের বৃহস্পতিবার (৫-আগষ্ট) রাতে তারা চুরি করে নিয়ে যায় অসহায় পরিবারটির একমাত্র আয়ের উৎস গরু তিনটি ও একটি বাছুর গরু তিনটির পেটে বাচ্চা আছে তবে দুপুরের দিকে বাছুরটি নিজে নিজে চলে এসেছে। তাই সবাই ধারণা করছে গরুগুলো চুরি করে নিয়ে আশপাশের কোন গ্রামে রাখা হয়েছে সরেজমিনে

মাধবপুর উপজেলার বুল্লা ইউনিয়নের বানেশ্বর গ্রামের তারা মিয়ার বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় মাহমুদা বেগম মাটিতে গড়াগড়ি খেয়ে চুরি হওয়া গরুর জন্য আহাজারি করছে পরিবারের আয়ের একমাত্র উৎস হারিয়ে তিনি পাগল প্রায় প্রতিবেশীরা জানান, মাহমুদা বেগম ও তার স্বামী তারা মিয়া দুজনেই দশ বছর যাবত বিভিন্ন অসুখ বিসুখের জন্য কোন কাজ করতে পারেন না। গরু লালন পালন করে দুধ বিক্রি করে তাদের সংসার চলে এলাকার একটি সংঘবদ্ধ গরু চোর চক্র আছে। এরা খুবই প্রভাবশালী হওয়ায় দিনের বেলায় গরু চুরি করে নিয়ে যায় এর আগেও বিভিন্ন সময়ে দিনের বেলায় এই চক্রের।

লোকজন আরও চারটি গরু চুরি করে নিয়ে গেছে এই পাড়া থেকে। এর মধ্যে গত বছরে একটি গরু চুরি হওয়ার পর মাধবপুর থানায় মামলা দায়ের করলে চোর সনাক্ত হয় এবং পুলিশ আনিস মিয়া নামে এক চোরকে আটক করে।
রহস্যজনক কারণে অন্যদের আটক করা হয়নি। পরে স্থানীয় কয়েকজন গণ্যমান্য ব্যক্তি বিচার করে চোরকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করে । পরবর্তীতে চোর চক্রের লোকজন গরুর মালিকদের রাতে ঘরের ভেতরে এসে গলা কেটে হত্যা করবে বলে হুমকি দেয়। বিষয়টি মাধবপুর থানার তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কে মৌখিক ভাবে অবগত করলে তিনি ভুক্তভোগীদের সতর্ক থাকতে বলেন।

তারা মিয়ার ছোট ভাই নজু মিয়া জানান গত বছর মামলাটা করার পর থেকেই চোর চক্রের লোকজন আমাদের বিভিন্ন হুমকি ধামকি দিয়ে আসছে। চুরির বিষয়টি আমরা বেসরকারি বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট মো: মাহবুব আলী এমপি কে অবগত করায় তারা বলে, মন্ত্রী তোদের কিভাবে বাঁচায় দেখবো ফলে আমরা আতংকের মধ্যে আছি, এব্যাপারে মাধবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক বলেন, গরু চুরির খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছি গরু উদ্ধারের জন্য অভিযান অব্যাহত আছে।