দুই জোটের হেভিওয়েট প্রতিদ্বন্দ্বীরা
নিজস্ব প্রতিবেদক : আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন মহাজোট আসন বণ্টন চূড়ান্ত করে তালিকা প্রকাশ করেছে। মহাজোটের নতুন শরিক যুক্তফ্রন্টের অন্যতম দল বিকল্পধারা বাংলাদেশকে দিয়েছে তিনটি আসন। তিনজনই লড়বেন নৌকা প্রতীক নিয়ে। দু’জনকে লড়তে হবে ঐক্যফ্রন্টের দুই হেভিওয়েট প্রার্থীর সঙ্গে। আর মাহী বি চৌধুরীর সঙ্গে কে লড়ছেন সেটা এখনও অমীমাংসিত।

নির্বাচনে জোট-মহাজোটের খেলায় বিকল্প ধারা বিএনপির নেতৃত্বধীন ২০ দলীয় জোট থেকে বেরিয়ে এবার মহাজোটের নতুন শরিক হিসেবে নির্বাচন করছে। যদিও যুক্তফ্রন্টের অন্য শরিক দলগুলোকে কোনো আসন দেওয়া হয়নি। এ নিয়ে যুক্তফ্রন্টের কোনো মন্তব্যও পাওয়া যায়নি।

মহাজোটের শরিকদের আসন বণ্টানের পর শুক্রবার (৭ ডিসেম্বর) ধানমন্ডি আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে শরিকদের হাতে নৌকার চিঠি ধরিয়ে দেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

এবার মহাজোটের নতুন শরিক বিকল্প ধারার তিনজন প্রার্থীই লড়বেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের তিন নেতার সঙ্গে। এরমধ্যে বিকল্প ধারার মহাসচিব মেজর (অব.) এম এ মান্নান এবার লক্ষ্মীপুর-৪ আসন থেকে নৌকা প্রতীকে লড়বেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা জেএসডির সভাপতি আ স ম আব্দুর রবের সঙ্গে। এই আসনে রব লড়বেন ধানের শীষ নিয়ে।

অন্যদিকে বিকল্পধারার প্রেসিডিয়াম সদস্য এম এম শাহীন মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে নৌকা প্রতীক নিয়ে লড়বেন ধানের শীষের সুলতান মোহাম্মদ মনসুরের সঙ্গে। শাহীন ১৯৯৬ ও ২০০১ সালে এই আসনে বিএনপির এমপি ছিলেন। মনসুর সবশেষ ২০০১ সালে আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচন করে শাহীনের কাছেই হেরেছিলেন। এখন তিনি ঐক্যফ্রন্টের হেভিওয়েট নেতা।

আর বিকল্পধারার মাহী বি চৌধুরী পেয়েছেন মুন্সীগঞ্জ-১ আসন। তিনিও নৌকা প্রতীকেই নির্বাচন করবেন। এই আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগের সুকুমার রঞ্জন ঘোষ। ২০ দল এই আসনে এখনও প্রার্থী চূড়ান্ত করেনি। তবে বিএনপি থেকে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন কেন্দ্রীয় ভাইস-চেয়ারম্যান শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন, ঢাকা কলেজের সাবেক ভিপি মীর সরফত আলী সপু, আল-মুসলিম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিরাজদিখান উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক শেখ মো. আব্দুল্লাহ। এদের যে কোনো একজন শেষ পর্যন্ত লড়বেন মাহীর বিপক্ষে।