কাজী ওহিদ,গোপালগঞ্জ থেকেঃ গেপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার আনসার ভিডিপি ট্রেনিং ইন্সপেক্টর (টিআই) আশরাফের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম, দুর্নীতি ও অনৈতিক অবক্ষয়ের অভিযোগ তুলে স্বরাষ্ট্র সচিব বরাবর অভিযোগ দায়ের করেছেন মুকসুদপুর পৌরসভার গোপিনাথপুর গ্রামের বাসিন্দা জানে আলম। স্বরাষ্ট্র সচিব বরাবর লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, টিআই আশরাফ আনসার ডিউটি দেয়ার নাম করে বিভিন্ন আনসার ভিডিপি সদস্যদের নিকট থেকে বিপুল পরিমান অর্থ হাতিয়ে নিয়েছেন। ভূয়া সিসি তৈরী করে সরকারী টাকা আত্মসাৎ করেছেন। দূর্গা পূজা হয়নি এমন সব মন্ডপে ডিউটি দেখিয়ে বিভিন্ন নামে মোটা অঙ্কের টাকা উঠিয়ে নিয়েছে। এনআইডি কার্ডে ত্রুটি আছে অভিযোগ তুলে অনেককে তাদের প্রাপ্য অর্থ আনসার ভিডিপি সদস্যদের না দিয়ে টিআই আশরাফ নিজেই পকেটে পুরেছেন। চন্ডিবরদি গ্রামের রুহুল আমিনের নিকট থেকে বিপুল অঙ্কের টাকা নিয়েও তাকে কোন গ্রুপ দেয়নি বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে। মাহবুব নামের কোন এপিসি না থাকলেও ঐ নামে ২১৫ নম্বরের সিসি দেয়া হয়েছে। কোন ডিউটি না করিয়ে লোকমান নামের একজনের মাধ্যমে ৪০ জনের টাকা উঠিয়ে নিয়েছে। মেয়েলী বিষয়ে কয়েকটি অভিযোগ উল্লেখ করে বলা হয়েছে, ট্রেনিং ইন্সপেক্টর আশরাফ মেয়েদের প্রশিক্ষন দেয়ার সময় তাদের মোবাইল নম্বর নিয়ে পরে তাদের কাছে ফোনের মাধ্যমে কুপ্রস্তাব দেয়। অফিস রুমের দরজা আটকিয়ে মেয়েদের নিয়ে অনৈতিক কর্মের বিষয়টি সর্বজনবিদিত বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে। এ বিষয়ে টিআই আশরাফের সঙ্গে মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদেরকে জানান,তার বিরুদ্ধে আনিত সব অভিযোগ মিথ্যা ও বানোয়াট। নিয়মের বাইরে কোন কাজ তিনি করেন না বলে জানান।

ইতিপূর্বে উপজেলা আনসার ভিডিপি অফিসার ও টিআই আশরাফের বিরুদ্ধে জাতীয় এবং স্থানীয় কয়েকটি পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হলেও তাদের বিরুদ্ধে সংশ্লিস্ট প্রশাসন আইনগত কোন ব্যবস্থা গ্রহন না করায় অনেকে প্রশাসনের স্বচ্ছতা নিয়ে নেতিবাচক মন্তব্য করেছেন।