বিশেষ প্রতিনিধি

পত্রিকার পাতায় হবুহ পড়তে উপরে বা নিচের ছবিতে ক্লিক করুন

প্রতি জেলায় একটি করে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের অংশ হিসেবে মেহেরপুর, নাটোর এবং নারায়ণগঞ্জে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করতে যাচ্ছে সরকার। মেহেরপুরে মুজিবনগর বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করতে এরই মধ্যে আইনের খসড়া তৈরি করে মন্ত্রিসভায় পাঠানো হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব স্বাক্ষরিত এ খসড়া পাঠানো হয়ছে।

মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেনের ফেসবুক টাইম লাইনে তার সহধর্মিণী এবং যুব মহিলা লীগ নেত্রী হোসেন মোনালিসার ট্যাগকৃত একটি পোষ্ট ‘মুজিবনগর বিশ্ববিদ্যালয় আর দূরে নয়’ প্রকাশ হয়েছে। এই পোষ্টে মেহেরবাসী এ অনন্য অবদানের জন্য প্র্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। ফেসবুক কমেন্টে প্রধানমন্ত্রীর পাশাপাশি অক্লান্ত পরিশ্রমের জন্য অভিনন্দনের বন্যায় ভাসছেন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

অন্যদিকে, নারায়ণগঞ্জে ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়’ এবং বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানীর নামে নাটোরে ‘ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়’ স্থাপনের আইনের খসড়া তৈরিরও কাজ চলছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারায়ণগঞ্জ, নাটোর এবং মেহেরপুরে তিনটি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করতে অনুমোদন দেওয়ার পর ২০২০ সালের ৭ ডিসেম্বর প্রধামন্ত্রীর কার্যালয় থেকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

মুজিবনগর বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করতে ২০২১ সালের ২২ সেপ্টেম্বর মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের তৎকালীন সচিব মো. মাহবুব হোসেনের সভাপতিত্বে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে এই বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হবে।

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মতো আচার্য, উপাচার্য, উপ-উপাচার্য (২ জন), কোষাধ্যক্ষ, সিন্ডিকেট ও অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের সদস্য সমন্বয়ে একটি সংবিধিবদ্ধ সংস্থা গঠিত হবে। বিজ্ঞান, কলা, মানবিক, সমাজবিজ্ঞান, আইন, ব্যবসায় প্রশাসন ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ে এবং জ্ঞান বিজ্ঞানের নতুন নতুন শাখায় স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে শিক্ষাদান, গবেষণা ও জ্ঞানের সৃজন, উৎকর্ষ সাধন ও বিতরণের ব্যবস্থা থাকবে।

এই বিশ্ববিদ্যালয় জাতি, ধর্ম, বর্ণ, গোত্র, লিঙ্গ, জন্মস্থান বা শারীরিক প্রতিবন্ধকতা নির্বিশেষে সকল শ্রেণির দেশি ও বিদেশি উপযুক্ত শিক্ষার্তীর ভর্তি, জ্ঞানার্জন এবং ডিগ্রি, ডিপ্লোমা বা সার্টিফিকেট কোর্স শেষ করার পর সনদ প্রাপ্তির জন্য উন্মুক্ত থাকবে। উচ্চ শিক্ষার বিভিন্ন ক্ষেত্রে অগ্রসরমান বিমে। বর সঙ্গে সঙ্গতি রক্ষা ও সমতা অর্জন এবং জাতীয় পর্যায়ে উচ্চ শিক্ষা ও গবেষণা, বিশেষ করে বিভিন্ন ক্ষেত্রে জ্ঞানচর্চা ও পঠন-পাঠনের সুযোগ সৃষ্টি ও সম্প্রসারণের উদ্দেশ্যে এই বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হচ্ছে।