দেওয়ান ফরহাদ, মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ প্রথম আলোর সিনিয়র সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্থা, নির্যাতনের প্রতিবাদ ও তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাব। সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলাকে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক আখ্যায়িত করে অবিলম্বে তাঁকে নিঃশর্ত মুক্তি দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন মুন্সিগঞ্জ জেলার সাংবাদিক নেতারা। প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা ও গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে আয়োজিত মানববন্ধন ও সমাবেশ থেকে এই দাবি জানানো হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাব ভবননের প্রধান সড়কে অনুষ্ঠিত এই কর্মসূচিতে বিভিন্ন সাংবাদিক ও সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। মানববন্ধনে মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এম জামাল হোসেন মন্ডলের সভাপতিত্বে সাধারন সম্পাদক সাইফুল ইসলাম কামালের সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন, মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন শিহাব, দপ্তর সম্পাদক হামিদুল ইসলাম লিংকন, কোষাধক্ষ সাইদ – উর রহমান, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মুকবুল হোসেন, শিক্ষা ও সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক রাজ মল্লিক, প্রচার সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন মানিক, বার্তা সম্পাদক গোলাম আশরাফ খান উজ্জল ( দৈনিক রজতরেখা) কার্যকরী সদস্য আবুল কালাম, নাছির উদ্দীন ( মানবজমিন), মোরসালিন রহমান ( খবর বাংলাদেশ) আলমগির হোসাইন (ঢাকার ডাক) রহিম মিয়া ( বাংলা টিভি), আপন সরদার ( খোলা কাগজ) মীর রাতুল (দৈনিক সকালের সময়) শাজাহান খান ( আমার সংবাদ) নাজমুল হাসান( স্বদেশ প্রতিদিন) ফরহাদ হোসেন ( এই আমার দেশ) নাসির উদ্দিন ( সি এন এন বাংলা) জাতীয় অনলাইন প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক ঢাকার খবর জেলা প্রতিনিধি কাজী বিপ্লব হাসান, তানভীর হোসেন( দৈনিক প্রভাতি খবর) মানিক মিয়াদ (দৈনিক আজকের আলোকিত সকালের) স্টাফ রিপোর্টার সাখাওয়াত হোসেন মানিক , তুহিন সরকার, জিয়াউর রহমান জিবন সহ অন্যান্য সাংবাদিকবৃন্দ। বক্তার রা বলেন, যেভাবে সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে সচিবালয়ে আটকে রেখে হেনস্তা করা হয়েছে, তা মুক্ত গণমাধ্যম ও সাংবাদিকতার জন্য হুমকি। তাঁর বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহার করে তাঁকে নিঃশর্ত মুক্তি দেওয়ার দাবি জানান সাংবাদিকনেতারা। সাংবাদিকনেতারা আরও বলেন, একের পর এক দুর্নীতির ঘটনা তুলে ধরার কারণে রোজিনা ইসলাম স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের রোষানলে পড়েন। পরিকল্পিতভাবে তাঁকে ফাঁসানোর জন্য হেনস্তা করে এই মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে।